বাংলাদেশ, শুক্রবার, ২২শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং, ৭ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ইসলামী ফ্রন্ট মহাসচিবকে কটুক্তি: চট্টগ্রামে ১০ কোটি টাকার ২টি মানহানি মামলা

বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট মহাসচিব মাওলানা এম এ মতিনকে কটুক্তি করায় মহানগর ইসলামী ফ্রন্ট কর্মী মুহাম্মদ জাহেদুল হক চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতে ও চন্দনাইশ থানার ইসলামী ফ্রন্ট কর্মী মোহাম্মদ ওসমান শাহাদাত চট্টগ্রাম জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট (সিজেএম) আদালতে রাঙ্গুনিয়ার মুহাম্মদ গোলাম ইমাম হোসাইনের বিরুদ্ধে ১০ কোটি টাকার ২ টি মানহানি মামলা (মামলা নং সি.আর-২২৩৭/১৯ কোতোয়ালি ও সি.আর-২৪৫/১৯ চন্দনাইশ) দায়ের করেছেন। চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-২ (কোতোয়ালী আমলী আদালত) এর বিজ্ঞ বিচারক আবু সালেম মোহাম্মদ নোমানের আদালতে ও চট্টগ্রাম জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-১ (চন্দনাইশ আমলী আদালত) এর বিজ্ঞ বিচারক আদালতে আজ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ রবিবার সকালে মামলাটি রুজু করা হয়।  মামলায় অভিযোগ সূত্রে উল্লেখ করা হয়, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের মহাসচিব মাওলানা এম এ মতিন স্বনামধন্য ইসলামী চিন্তাবিদ ও জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব। তাঁর সম্মানহানি করার মানসে আসামী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে ইয়াজিদ, দালাল, দুর্নীতিবাজ, পদলোভীসহ বিভিন্ন অশ্লীল ও কুরুচিপূর্ণ ভাষায় ভিত্তিহীন অসত্য তথ্য দিয়ে মিথ্যাচার করেছে। মহাসচিব দলের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী, তাঁর মানহানির মাধ্যমে মূলতঃ দলেরও মানহানি করা হয়েছে। ফলে বাদীগণ দলের সদস্য হিসাবে মর্মাহত ও সংক্ষুদ্ধ হয়ে আদালতের দ্বারস্ত হয়েছেন। উভয় মামলার বিবরণীতে উল্লেখ করা হয়, ইসলামী ফ্রন্ট মহাসচিবের প্রায় ১০ কোটি করে ২০ কোটি টাকার মানহানি হয়েছে। ফৌজদারি অভিযোগটি আমলে নিয়ে সিএমএম আদালত ডিটেকটিভ ব্রাঞ্চ (ডিবি)কে ও সিজেএম আদালত পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) কে তদন্তের নির্দেশ প্রদান করেন।
বাদী পক্ষে বিজ্ঞ কৌশুলী ছিলেন, অ্যাডভোকেট মোঃ এরশাদ, অ্যাডভোকেট মোঃ এমরান নাঈম, অ্যাডভোকেট দিদারে আলম, অ্যাডভোকেট প্রতীত বড়ুয়া (জনি), আ্যাডভোকেট মোজাম্মেল হক ফারুকী, অ্যাডভোকেট মহিউদ্দীন চৌধুরী, অ্যাডভোকেট মিজানুর রহমান সামি, অ্যাডভোকেট ওয়াহিদুজ্জামান চৌধুরী, অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান রুবেল, অ্যাডভোকেট ইমরান হোসেন ইমু, অ্যাডভোকেট ফাহিম ইবনে রহমান, অ্যাডভোকেট ইমরান হোসাইন, অ্যাডভোকেট রোকন উদ্দিন, অ্যাডভোকেট মিথিলা রহমান, অ্যাডভোকেট শাহাদত শরীফ, অ্যাডভোকেট আরিফুল কবির, অ্যাডভোকেট প্রসেনজিৎ, অ্যাডভোকেট সুজন বিশ্বাস, অ্যাডভোকেট প্রমীলা বড়ুয়া সহ শতাধিক আইনজীবী।
এ ব্যাপারে বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব (মুখপাত্র) অধ্যক্ষ স. উ. ম আবদুস সামাদ বলেন, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের বিরুদ্ধে একটি কুচক্রী মহল ধারাবাহিক ষড়যন্ত্র করে আসছে। তাদেরকে চিহ্নিত করা হয়েছে। নেতাকর্মীরা সংক্ষুদ্ধ হয়েছে, তাদের বিরুদ্ধে ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালসহ সারাদেশে অসংখ্য মামলা ফাইলিংয়ের ব্যাপারে আমাকে কল করে জানিয়েছেন।
ছাত্রসেনার কেন্দ্রীয় সভাপতি জি.এম শাহাদত হোসাইন মানিক বলেন, অসত্য ও বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে সংগঠনের জাতীয় নেতৃবৃন্দকে বিতর্কিত করতে যারা অপচেষ্টা করছে, তাদের কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। আমার নিকট তথ্য আছে, ঢাকা, সিলেট, হবিগঞ্জ, বি-বাড়ীয়া, কক্সবাজারসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট, যুবসেনা ও ছাত্রসেনার নেতাকর্মীরাও ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে মামলা প্রস্তুতি নিয়েছে।

আরো খবর

Leave a Reply