বাংলাদেশ, রবিবার, ২০শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং, ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশের পঁচানব্বই ভাগ মানুষ এখন বিএনপি’র পক্ষে :মিনু

মহানগর ও জেলা যুবদলের মানববন্ধন

যুবদলের কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর হিসেবে রাজশাহী মহানগর ও জেলা যুবদলের আয়োজনে গতকাল শুক্রবার বেলা ১১টায় নগরীর মালোপাড়াস্থ বিএনপি কার্যালয়ের সামনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিহিংসার রাজনীতির শিকার, মিথ্যা মামলার দীর্ঘদিন কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে সকল দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করার দাবীতে মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন মহানগর যুবদলের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সুইট। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার অন্যতম উপদেষ্টা, সাবেক মেয়র ও সংসদ সদস্য জননেতা মিজানুর রহমান মিনু। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক, রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সভাপতি ও রাসিক সাবেক মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক ও রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন, মহানগর বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক আসলাম সরকার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওয়ালিউল হক রানা ও জেলা যুবদলের সভাপতি মোজাদ্দেদ জামানী সুমন। অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় ছিলেন মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান রিটন ও জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল আলম সমাপ্ত।
এছাড়াও জেলা বিএনপি’র আহবায়ক কমিটির সদস্য এ্যাডভোকেট মিতালী, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি জাকির হোসেন রিমন, সাধারণ সম্পাদক আবেদুর রেজা রিপন, জেলা যুবদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি নাসির উদ্দিন বাবু, মহানগর যুবদলের সহ-সভাপতি জামাল উদ্দিন কাবলু, আলাউদ্দিন হিমেল, জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি সুলতান আহম্মেদ, মোজাফ্ফর হোসেন মুকুল, মাহবুব, মাসুম, মিলন, যাদু ও আলমগীর, মহানগর যুবদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফাইজুল হক ফাহি, কামরুজ্জামান মিলন, আল-আমিন, আশরাফ, মনিরুল ইসলাম, সালাউদ্দিন বিপ্লব, আপেল ও টিয়া, জেলা যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল কাদের, রাজন, ইয়াকুব, দুলু ও সোহেল, মহানগর ছাত্রদলের ১নং যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আকবার আলী জ্যাকি, নাহিন আহম্মেদ ও জেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি রবিউল ইসলাম কুসুমসহ জেলা, মহানগর, উপজেলা, থানা, পৌরসভা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে মিনু বলেন, বর্তমান সরকার পুতুল সরকারের পরিণত হয়েছে। দেশের শতকরা ৯৫ভাগ মানুষ এখন বিএনপি’র পক্ষে রয়েছে। শুধুমাত্র আইনশৃংখলা বাহিনী ও প্রশাসনকে বিধি বহির্ভূতভাবে কাজে লাগিয়ে এই সরকার টিকে আছে। কারণ বতর্মমান সরকারের সত্য বলা এবং সঠিক পথে কাজ করার কোন ক্ষমতা বাব সাহস নাই। সকরকার দলীয় নেতা সমর্থকরা যে যার মত করে অন্যায় করে যাচ্ছে। সেইসাথে টাকার পাহার গড়ে তুলছে। ঢাকা মসজিদের শহর হলেও এখন ক্যাসিনোর শহরে পরিণত হয়েছে। আর এই ক্যাসিনোর মালিক হচ্ছেন যুবলীগের সোনার ছেলেরা ও আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতারা। তারা সরকারের ছত্র ছায়ায় থেকে হাজার হাজার কোটি টাকার মালিক হয়েছে। এই ক্যাসিনোর নিয়ে সরকারের সাধারণ সম্পাদক মিথ্যাচার করছেন। শুধু তাই নয় বিভিন্ন ক্রীড়াচক্র ও ক্লাব, যেগুলোর সাথে যুবলীগ, আওয়ামী লীগ নেতারা জড়িত বলে তিনি উল্লেখ করেন।
তিনি ছাত্রলীগের ছেলেরা কোটি কোটি লোপাট করলেও তাদের বিরুদ্ধে কোন পদক্ষেপ গ্রহন করছেনা সরকার। এছাড়াও সরকার দলীয় খুনিদেরও জামিন দিচ্ছে সরকারের নির্দেশে। অথচ বেগম খালেদা জিয়া কোন প্রকার দূর্নীতির সাথে জড়িত না থাকলেও এই সরকার সম্পূর্ন রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় বশিভূত হয়ে বিনা অপরাধে কারাগারে রেখেছেন। এখন বেগম জিয়ার মুক্তি সময়ের ব্যপার মাত্র। আগামী ২৯ তারিখ বিভাগীয় সমাবেশে মাধ্যমেই এই সরকারের পতনের ঘন্টা বাজানো হবে। এই আন্দোলনে সকল নেতাকর্মীদের রাজপথে থাকার আহবান জানান মিনু।

আরো খবর

Leave a Reply