বাংলাদেশ, মঙ্গলবার, ১৫ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং, ৩০শে আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বশেমুরবিপ্রবিতে সাংবাদিক বহিষ্কার ও হয়রানির প্রতিবাদে গবিসাসের মানববন্ধন 

মোঃ আশিকুর রহমান (গবি প্রতিনিধি) :
ফেসবুকে বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে লেখালেখি এবং উপাচার্যের আইডি হ্যাকের ভিত্তিহীন, বানোয়াট অভিযোগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) শিক্ষার্থী ফাতেমা তুজ জিনিয়াকে বহিষ্কারের প্রতিবাদে ও অশালীন গালাগালি করায় উপাচার্য ড. খোন্দকার নাসির উদ্দিনের অপসারণ দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে সাভারের গণ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (গবিসাস)।
বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) বেলা ৩ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বাদামতলায় উক্ত কর্মসূচি পালিত হয়। সারাদেশের ক্যাম্পাস সাংবাদিকদের সংগঠন বাংলাদেশ ক্যাম্পাস জার্নালিস্টস’ ফেডারেশন এর ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে গবিসাস এ কর্মসূচি পালন করে।
মানববন্ধনে গবিসাসের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ রনি খাঁ বলেন, ‘জি‌নিয়ার সা‌থে বিশ্ব‌বিদ্যাল‌য়ের উপাচার্য যে আচরণ ক‌রে‌ছেন তা সং‌বিধান প‌রিপ‌ন্থি এবং দে‌শের স্বাধীনতার জন্য হুমকি। একটা বিশ্ব‌বিদ্যালয়ের কর্তাব্য‌ক্তি হ‌য়ে তি‌নি এ‌মন হীন কাজ কর‌তে পা‌রেন না। এমন ব্য‌ক্তির গোপালগ‌ঞ্জের প‌বিত্র মা‌টি‌তে একটা বিশ্ব‌বিদ্যাল‌য়ের উপাচার্য থাকার যোগ্যতা রা‌খেন না। অাপনাকে পদত্যাগে বাধ্য করে অামরা অাপনার সকল অন্যায়ের উপযুক্ত জবাব দেব।
এ সময় অন্যান্য বক্তারা বলেন, ক্যাম্পাসে সাংবাদিকদেরকে স্বাধীনভাবে কাজ করার সুযোগ দিতে হবে। দুর্নীতির সাথে জড়িত কোনো ব্যক্তি বশেমুরবিপ্রবি মত বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসেবে থাকার কোনো নৈতিক অধিকার রাখেন না।
উল্লেখ্য, গত ১১ সেপ্টেম্বর বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রফেসর ড. নূরউদ্দিন আহমেদ স্বাক্ষরিত এক নোটিশে আইন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ও ডেইলি সানের ক্যাম্পাস প্রতিনিধি ফাতেমা-তুজ-জিনিয়াকে এক সেমিস্টারের জন্য সাময়িক বহিষ্কার করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।
বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সঙ্গে ওই শিক্ষার্থীর কথোপকথনের অডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে সমালোচনার ঝড় ওঠে। এ নিয়ে দেশের কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়। পাশাপাশি বাংলাদেশ ক্যাম্পাস জার্নালিস্টস ফেডারেশন ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে ও বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে বিভিন্ন ক্যাম্পাসে কর্মরত সাংবাদিকদের কর্মসূচি পালনের আহ্বান জানায়। টানা চার দিনের সমালোচনার পর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ওই শিক্ষার্থীর সাময়িক বহিষ্কার আদেশ প্রত্যাহার করে নেয়।

আরো খবর

Leave a Reply