বাংলাদেশ, সোমবার, ২০শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং, ৫ই কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

প্রোগ্রাম না করলে শিক্ষার্থীদের রফা দফা করার হুমকি ছাত্রলীগ নেতা সাজুর

 ঢাবি প্রতিবেদক

স্যার এ এফ রহমান হলের জুনিয়র শিক্ষার্থীদের হুমকি দিয়েছে হল ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সালাউদ্দিন আহমেদ সাজু। তিনি হল ছাত্রলীগের কর্মীদের নিয়ে গঠিত একটি ফেইসবুক গ্রুপে এই হুমকি প্রদান করেন। তিনি সেখানে শিক্ষার্থীদের প্রোগ্রাম এবং গেস্টরুম না করলে রফা দফা করার হুমকি প্রদান করেন। তিনি আরও বলেন, নিয়মিত গেস্টরুম হবে, হলে থাকতে হলে জবাবদিহিতার মধ্যে আসতে হবে।

পাঠকদের জন্য তার স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হল,‘আজকে(২৮ আগস্ট), সন্ধ্যা ৬টায় টিএসসি অডিটোরিয়ামে প্রোগ্রাম আছে। তোমাদের সাথে ভালো মন মানসিকতা নিয়ে কথা বলার বিন্দু মাত্র ইচ্ছা নেই আমার। আমাদের জায়গা থেকে তোমাদেরকে অন্যান্য হলের সবার চেয়ে সবচেয়ে বেশি  সুযোগ সুবিধা দেয়ার চেষ্টা করে থাকি অথচ তোমরা আমাদের এই বিষয়টা অনুধাবন করতে পারো না। থ্রেট মনে করলে থ্রেট আর না মনে করলে শুধুই নির্দেশনা। আজকের প্রোগ্রামে সবচেয়ে বেশি উপস্থিতি চাই। প্রতিদিন তোমাদের জন্য আমরা অপমানিত হই। ভাইয়ের বকা খাই। মনে রাখবা সাদ্দাম ভাইও এই হলে ছিল, তারাও ৪০০/৫০০ জন নিয়ে নিয়মিত প্রোগ্রাম করেছে। আজকের পর থেকে নিয়মিত হলে গেস্টরুম হবে। সবাইকে হলে অবস্থান করতে হলে জবাবদিহিতার আওতায় আসতে হবে। আজকে ৫.৩০ এর পরে হলে যদি কাউকে পাই তবে একটা রফা দফা হবে বলে রাখলাম কিন্তু। ৫.৩০ মানে ৫.৩০।’

হল সূত্রে জানা যায়, সাজু ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের শিক্ষার্থী। তবে এখন চতুর্থ বর্ষে পড়ছে সে। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন এর অনুসারী এবং আগামী হল ছাত্রলীগের কমিটিতে প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী।  যাতে তিনি প্রেসিডেন্ট হতে পারেন তাই ছাত্রলীগের শীর্ষ নেতাদের, ব্যাপক কর্মীর উপস্থিতির মাধ্যমে তার প্রভাব দেখিয়ে নেতাদের সুদৃষ্টি পাওয়ার জন্য হলের জুনিয়র(৪র্থ বর্ষ থেকে ১ম বর্ষ) শিক্ষার্থীদের একের পর এক চাপ প্রয়োগ করছেন। এমনকি প্রোগ্রামের সময় ক্লাস থাকলে ক্লাস করতেও নিষেধ করা হচ্ছে নইলে শিক্ষার্থীদের শিবিরের ট্যাগ দিয়ে হল থেকে বের করার হুমকি দেয়া হচ্ছে বলে শিক্ষার্থীদের অভিযোগ সাজুসহ হল ছাত্রলীগের আরও কয়েকজন নেতার বিরুদ্ধে।

ওদিকে দীর্ঘদিন ধরে সাধারণ শিক্ষার্থীদের অভিযোগ- হলে শিক্ষার্থীদের গেস্টরুমে নির্যাতন করা হয়। জোর করে প্রোগ্রাম করানো হয়, যার ফলে তারা হলে থাকতে পারে না। হলে থাকলে নিয়মিত ক্লাস এবং পড়াশুনা করতে পারে না। ছাত্রলীগ নেতা সাজুর এই স্ট্যাটাসটির মাধ্যমে সেটি প্রমাণিত হল বলছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

তবে এ বিষয়ে কথা বলতে সাজুর সাথে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা হলেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

এ বিষয়ে জানতে স্যার এফ রহমান হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. কে এম সাইফুল ইসলাম খানকে মুঠোফোনে কয়েকবার কল দেয়ার চেষ্টা করলেও তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

গেস্টরুম নির্যাতনের সমালোচনায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের(ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুর বলেন,’বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজগুলোতে চাঁদাবাজ,  দখলদার সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে অপ রাজনীতি বন্ধে সোচ্চার হতে হবে। শিক্ষার্থীদেরকে দিয়ে জোর করে মিছিল-মিটিং, সিট বাণিজ্য, সিট দখলের রাজনীতির বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলেন। দৃঢ়তা এবং সৎসাহস নিয়ে চালিয়ে গেলে বিজয় হবেই।

2 Attachments

আরো খবর

Leave a Reply