বাংলাদেশ, সোমবার, ১৮ই আগস্ট, ২০১৯ ইং, ৪ঠা ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

আজ চট্টগ্রামের শতাধিক গ্রামে ঈদ উৎযাপিত

আরমান হোসেন ও শর্মিলা রহমান
 আজ (১১আগস্ট) রবিবার দক্ষিণ চট্টগ্রামের শতাধিক গ্রামে ঈদুল আযাহা উৎযাপিত হয়েছে। দক্ষিণ চট্টগ্রামের চন্দনাইশ জাহাঁনগিরিয়া শাহ্সুফি মমতাজিয়া দরবার শরীফ ও মির্জাখিল দরবার শরীফের অনুসারীরা ঈদের নামাজ আদায় করেন। মধ্যপ্রাচ্যের চাঁদ দেখার উপর ভিত্তি করে প্রায় দুইশত বছরের অধিক সময় ধরে এ দরবারে অনুসারীরা একদিন পূর্বে মাহে রমজান, ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আযহাসহ সকল ধর্মীয় উৎসব পালন করে আসছে। এই দরবারের অনুসারীরা দক্ষিণ চট্টগ্রামের ৫০টির অধিক গ্রামে ঈদ উৎযাপন করেন। উপজেলার এলাহাবাদ, বরকল, বরমা শেভন্দী, হাশিমপুর দোহাজারী, সাতবাড়িয়া, জোয়ারা,আনোয়ারা এলাকায় উক্ত তরিকতের অনুসারীরা ঈদের নামাজ আদায় করেন বলে জানা যায়। চট্টগ্রামের আনোয়ারা থানার তৈলারদ্বীপ গ্রামে হযরত লতিফ শাহ (রাঃ) মাজার শরীফে সকাল ৮ টায় ঈদ উল আযহার জামাত অনুষ্ঠিত হয়।
  আনোয়ারার আলমগীর নামের এক অনুসারী অনলাইন সংবাদ মাধ্যম বাংলাপোস্টবিডিকে জানান,আমরা প্রতি বছরের ন্যায় এই বছরও আরব দেশের সাথে মিল রেখে ঈদ পালন করছি।এটা আমাদের অন্য রকম অনুভূতি।আমাদের বংশ পরস্পরায় আমরা এটা পালন করে আসছি, খুব ভাল লাগছে আজ। প্রসংগত বাংলাদেশে আগামীকাল ১২ আগস্ট পবিত্র ঈদ-উল-আযহা অনুষ্ঠিত হবে। 

 আজ রোববার (১১ আগস্ট) সাতকানিয়ার মির্জাখীল দরবার শরীফের সাজ্জাদানশীন শাহ জাহাঁগীর তাজুল আরেফীন মৌলানা মোহাম্মদ আরেফুল হাই (ক.) এর উপস্থিতিতে দরবারের ঈদগাহে ঈদুল আজহার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। সকাল ৯টায় নামাজে ইমামতি করেন আলেমে দ্বীন ড. মৌলানা মোহাম্মদ মকছুদূর রহমান (ক.)। মির্জাখীল দরবার শরীফের মুখপাত্র মোহাম্মদ মছউদুর রহমান জানান, সাতকানিয়ার নিকটবর্তী উপজেলাগুলো হতে সহস্রাধিক অনুসারী নামাজে অংশ গ্রহণ করেছেন।তুরষ্ক, জার্মানী, সুইজারল্যান্ড, ফ্রান্স, ভারত, শ্রীলংকাসহ বিশ্বের বিভিন্ন স্থানেও মির্জাখীল দরবার শরীফের অনুসারীরা আজ পবিত্র ঈদুল আজহা পালন করছেন। দিচ্ছেন পশু কোরবানি।

এদিকে পটিয়ার এলাহাবাদ দরবার শরীফের অনুসারীরাও ঈদুল আজহা উদযাপন করছেন। পার্বত্য জেলা বান্দরবানের লামা, আলীকদম, নাইক্ষ্যংছড়ি, কক্সবাজারের চকরিয়া, টেকনাফ, মহেশখালী, কুতুবদিয়া ও হ্নীলার কয়েকটি গ্রামের মানুষও রোববার ১১ আগস্ট ঈদুল আজহার নামাজ আদায় এবং পশু কোরবানি দিয়েছেন।

 

আরো খবর

Leave a Reply