বাংলাদেশ, সোমবার, ১৮ই আগস্ট, ২০১৯ ইং, ৪ঠা ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

স্টিল মিল, কাটগড়, সাগরিকা, বিবিরহাট, মইজ্জ্যারটেক ও নুর নগর হাউজিং গরুর বাজারে ঈদুল আযহায় সুস্থ ও নিরাপদ গবাদিপশু ক্রয়ে ক্যাব ও প্রাণী সম্পদ অফিসের প্রচারাভিযান সম্পন্ন

স্থানীয় ভাবে প্রচুর গরুর উৎপাদন হলেও বাজারে পর্যাপ্ত গরুর সরবরাহ এখনও আসেনি, অন্যদিকে উত্তরাঞ্চলের গরুর সরবরাহ বাজারে  থাকায় বর্তমান কোরবানীর মৌসুমে গবাদিপশুর সংকটে সম্ভাবনা কম। সিটিকর্পোরেশন কোটি কোটি টাকায় গরুর বাজার ইজারা দিলেও ৪৫ডিগ্রি অ্যাঙগেলে গরু দাঁড়িয়ে রেখে গবাদিপশুকে বড় করে দেখানোর কারনে বাজারে গবাদিপশুগুলি পরিপূর্ণ বিশ্রাম পাচ্ছে না,ক্রেতারাও অনেক জায়গায় ঠকছে। বাজারে জাল টাকা সনাক্ত করার জন্য বিভিন্ন ব্যাংকের প্রচুর বুথ স্থাপিত হলেও এসমস্ত বৃথগুলি ব্যাংকগুলির বিজ্ঞাপন ছাড়া সেবার জন্য লোকজন পাওয়া যায় না। জেলা প্রাণী সম্পাদ অফিসের ভেটেরিনারী মেডিকেল ক্যাম্প স্থাপন করা হলেও তা প্রয়োজনের তুলনায় কম এবং ক্রেতারা সে বিষয়ে পুরোপুরি সচেতন নন। ফলে গবাদি পশুর চিকিৎসায় হাতুড়ে ডাক্তারদের অবাধ বিচরণের কারনে কৃতিমভাবে গরু মোটাতাজকরণসহ অপচিকিৎসার সম্ভাবনা থেকেই যাচ্ছে। অন্যদিকে প্রতি বছরের ন্যায় গরুর বাজারে ০১ সপ্তাহ আগে থেকেই জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার ঘোষনা থাকলেও সিটিকর্পোরেশন ও জেলা প্রশাসনের কোন ভ্রাম্যমান আদালতের টিমকে বাজারে দেখা যায়নি। এ অবস্থায় গবাদি পশু ক্রয়ে ক্রেতাদেরকে আরও সতর্কতা অবলম্বন করা, প্রাণী সম্পদ অফিসের নির্দেশনা অনুযায়ী গবাদি পশু ক্রয় এবং পরবর্তী পরিচর্যা অনুসরণ, গরুর বাজারকে সুস্থ ও নিরাপদ পরিবেশ নিশ্চিত করতে সিটিকর্পোরেশন ও জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান আদালত জোরদার করার দাবি জানিয়েছেন কনজ্যুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) চট্টগ্রাম নেতৃবৃন্দ। ০৮ আগষ্ঠ ২০১৯ইং নগরীর কাটগড়, স্টীলমিল, সাগরিকা, বিবিরহাট, মইজ্জ্যারটেক ও নুর নগর হাউজিং গরুর বাজারে আসন্ন পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে সুস্থ, রোগমুক্ত নিরাপদ গবাদিপশু ক্রয়ে সচেতনতা সৃষ্টিতে প্রচারণা কর্মসূচি ও গবাদিপশুর বাজার পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ শেষে নেতৃবৃন্দ উপরোক্ত মতামত ব্যক্ত করেন।

কনজ্যুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ(ক্যাব) চট্টগ্রাম ও জেলা প্রাণী সম্পাদ কার্যালয় এর যৌথ প্রচারনা কার্যক্রম ও গবাদিপশুর বাজার পর্যবেক্ষন কার্যক্রমে সাগরিকা বাজারে সংহতি প্রকাশ করেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিট পুলিশের কমিশনার মোঃ মাহবুবুর রহমান, চট্টগ্রাম সিটিকর্পোরেশনের নারী কাউন্সিলর আবিদা আজাদ, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের বিভাগীয় উপ-পরিচালক ডাঃ ফরহাদ হোসেন, জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ রেয়াজুল হক জসিম, বিবিরহাটে সংহতি প্রকাশ করেন চট্টগ্রাম সিটিকর্পোরেশনের কাউন্সিলর মোবারক আলী। প্রচারণা কর্মসূচি ও বাজার পর্যবেক্ষন কার্যক্রম তদারকি উপলক্ষে নেতৃত্ব প্রদান করেন ক্যাব কেন্দ্রিয় কমিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট এস এম নাজের হোসাইন, ক্যাব মহানগরের যুগ্ন সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম, ক্যাব চট্টগ্রাম দক্ষিন জেলা সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক শাহনেওয়াজ আলী মির্জা, ক্যাব মহানগরের জান্নাতুল ফেরদৌস, ক্যাব চান্দগাঁও থানা সভাপতি জানে আলম, সেলিম সাজ্জাদ, ক্যাব বন্দরের সমন্বয়ক মোহাম্মদ আলী সিকদার, ক্যাব কোতোয়ালীর নবুয়ত আরা সিদ্দিকী, হেলাল উদ্দীন, ক্যাব আকবর শাহ থানার ডাঃ মেসবাহ উদ্দীন তুহিন, দিদারুল আলম প্রধান, হারুন গফুর ভুইয়া, কোহিনুর আকতার, ক্যাব হালিশহরের এমদাদুল আলম সৈকত, ক্যাব চান্দগাঁও এর অধ্যক্ষ মনিরুজ্জমান, আবু ইউনুচ, ক্যাব পাঁচলাইশের সায়মা হক, সেলিম জাহাঙ্গীর, শাকিল আহমেদ মুন্না, জাবেদ আলম শাহীন, রেশমী আখতার, মুক্তা শেখ মুক্তি, ক্যাব চট্টগ্রামের মাঠ সমন্বয়কারী তাজমুন্নাহার হামিদ, শম্পা কে নাহার, জেডএইচ শিহাব প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

পরে ক্যাব প্রতিনিধি দল স্টিল মিল, কাটগড়, সাগরিকা, বিবিরহাট,মইজ্জ্যারটেক ও নুর নগর হাউজিং গবাদি পশুর বাজারে ক্রেতাদের মাঝে জেলা প্রাণী সম্পদ কার্যালয় ও ক্যাব কর্তৃক প্রণীত লিফলেট বিতরন করেন এবং বাজারের দর্শনীয় স্থানে ব্যানার-ফেস্টুন স্থাপন করেন। এউপলক্ষে অনুষ্ঠানে ক্যাব নেতৃবৃন্দ বলেন কোরবানীর গরুর বাজারে যেন ক্রেতারা প্রতারিত না হয় সেজন্য প্রশাসনের উদ্যোগে ভ্রাম্যমান আদালত ও প্রাণী সম্পাদ অফিসের ভ্রাম্যমান মেডিকেল টিম নিয়োজিত থাকবে। যেখানে অতি সহজে রোগাক্রান্ত ও কৃত্রিমভাবে মোটাতাজাকরণ গবাদি পশু সনাক্ত করা যাবে। ক্রেতারা প্রযোজনে জেলা প্রাণী সম্পাদ কার্যালয়ের হটলাইন নং  ০১৮৫৯২৫৫১৫১, ০১৭২০৮৮২২৮২ এই নাম্বার অথবা www.facebookCABdhaka, Consumers Association of Bangladesh-CAB/ক্যাব চট্টগ্রাম এই ঠিকানায় যোগাযোগ করতে পারবেন।

উল্লেখ্য ০৭ আগষ্ঠ ২০১৯ থেকে ক্যাব ও জেলা প্রাণী সম্পাদ কার্যালয় চট্টগ্রাম, জেলা প্রশাসন চট্টগ্রামের যৌথ উদ্যোগে কোরবানীর হাটে ক্রেতা হয়রানি রোধ, সুস্থ ও নিরাপদ গবাদি পশু ক্রয়, কৃত্রিমভাবে গরু মোটাতাজাকরণ সনাক্ত করণে নগরীর ০৮টি গবাদি পশুর বাজার ও নগরীর বাইরে ০২টি বাজারে প্রচারপত্র বিলি, ব্যানার স্থাপন, ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা, গরুর বাজারে সার্বক্ষনিক ভাবে ভোটেরিনারী সার্জন উপস্থিতি ও জরুরী প্রয়োজনে হটলাইন সেবা প্রদানের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

আরো খবর

Leave a Reply