বাংলাদেশ, শুক্রবার, ১৩ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং, ২৮শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

‘ট্রাম্পের নিকট প্রিয়া সাহার নালিশ বাংলাদেশের বিরুদ্ধে গভীর ষড়যন্ত্রের অংশ’ -আহলে সুন্নাত সমন্বয় কমিটির বিবৃতি

 

বাংলাদেশে সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠী নির্যাতিত হচ্ছে ও বাংলাদেশ থেকে হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের ৩ কোটি ৭০ লাখ লোক গুম করা হয়েছে বলে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের নিকট বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিয়া সাহা যে অভিযোগ করেছেন, তা দেশ বিরোধী গভীর ষড়যন্ত্রের অংশ বলে আখ্যায়িত করেছেন আহলে সুন্নাত ওয়াল জমা’আত সমন্বয় কমিটি।
আজ ২২ জুলাই ২০১৯ইংরেজি সোমবার আহলে সুন্নাত ওয়াল জমা’আত সমন্বয় কমিটির প্রধান সমন্বয়ক মাওলানা এম এ মতিন ও সদস্য সচিব এডভোকেট মোছাহেব উদ্দিন বখতিয়ার একযুক্ত বিবৃতিতে প্রিয়া সাহার মিথ্যাচারের তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, আবহমানকাল থেকে বাংলাদেশের মুসলমান হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান প্রত্যেক সম্প্রদায়ের মানুষ জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সম্প্রীতির বন্ধনে আবদ্ধ। এ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করে বাংলাদেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বকে বিপন্ন করতে একটি চক্র গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। প্রিয়া সাহা কর্তৃক যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে ভয়ঙ্কর মিথ্যা অভিযোগ দেশ বিরোধী সেই চক্রান্তের একটি অংশ। সম্প্রতি চট্টগ্রামে হিন্দুত্ববাদী সংগঠন ‘ইসকন’ কর্তৃক স্কুল শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রসাদ বিতরণের নামে হিন্দু ধর্মীয় মন্ত্র পাঠ করানো ও প্রিয় সাহার ভয়ঙ্কর অসত্য নালিশের মাধ্যমে দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির পাঁয়তারার মধ্যে কোন যোগসূত্র থাকতে পারে। তাই বর্তমান পরিস্থিতিতে দেশের প্রত্যেক নাগরিককে এ ব্যাপারে সোচ্চার থাকতে হবে। বিশেষত: এ ষড়যন্ত্রের ব্যাপারে হিন্দু সম্প্রদায়কে তাদের অবস্থান পরিষ্কার করতে হবে। একথা অবশ্যই মনে রাখা উচিত যে, বাংলাদেশের সরকার ও নাগরিক অসাম্প্রদায়িক বিধায় সরকারি-আধা সরকারি প্রায় চাকরিতে সংখ্যালঘুরা অধিকাংশ গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে আসীন। ধর্মীয় জনসংখ্যা অনুপাতে কখনো এত অধিক সংখ্যালঘু নাগরিকের চাকরি হতো না। এভাবে দেশের ৯০ শতাংশ মুসলমানদের চেয়ে হিন্দু-বৌদ্ধ বা অন্যান্য ধর্মাবলম্বীদেরকে ক্ষেত্রে বিশেষে বিশেষ সুবিধা দেয়া হচ্ছে। তাই এসব সুবিধাভোগীরা দেশের স্বার্থ রক্ষায় কাজ করবে, এটাই কাম্য।
আহলে সুন্নাত নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, প্রিয়া সাহা শুধু মুসলমানদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেনি, বরং রাষ্ট্রের বিরুদ্ধেও মারাত্মক অভিযোগ ও মিথ্যাচার করেছে। যা সরাসরি রাষ্ট্রদ্রোহিতার শামিল। কিন্তু প্রিয়া সাহার রাষ্ট্রদ্রোহিতার বিরুদ্ধে সরকারের আইনমন্ত্রীসহ কর্তাব্যক্তিদের বক্তব্যও রহস্যজনক। সরকারের জ্ঞাত থাকা উচিত- রাষ্ট্রদ্রোহের বিরুদ্ধে তড়িৎ ব্যবস্থা গ্রহণ করা না হলে দেশের ভবিষ্যত মারাত্মক হুমকিতে পড়তে পারে। শুধু রাজনৈতিক আশ্রয় বা সুবিধা লাভের জন্য কেউ এ ধরণের মিথ্যাচার করতে পারে না। তার উদ্দেশ্যমূলক অভিযোগের পিছনে কারা কলকাঠি নাড়ছে, তাদেরকেও আইনের আওতায় আনতে হবে।
নেতৃবৃন্দ সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, সুফিবাদি সুন্নী জনতা সবসময় দেশ-জাতির স্বার্থ রক্ষায় ঐক্যবদ্ধ ছিল, আছে এবং থাকবে। তাই দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্র প্রতিরোধে সরকারের সঠিক পদক্ষেপে সুফিবাদি সুন্নী জনতার প্লাটফর্ম আহলে সুন্নাত ওয়াল জমা’আত সমন্বয় কমিটি সহায়তা করবে।

আরো খবর

Leave a Reply

Close