বাংলাদেশ, রবিবার, ১৮ই আগস্ট, ২০১৯ ইং, ৩রা ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক মিয়া ফারুকীর ৩য় মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে ও মুক্তিযুদ্ধের চর্চায় মিয়া আবু মোহাম্মদ ফারুকীর অবদান অপরিসীম

 

দক্ষিণ চট্টগ্রাম পটিয়ার কৃতি সন্তান, বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রাজনীতিক সহচর, অবিভক্ত চট্টগ্রাম জেলা আওয়ামীলীগের প্রাক্তন প্রচার ও দপ্তর সম্পাদক, বিশিষ্ট লেখক ও প্রাবন্ধিক মিয়া আবু মোহাম্মদ ফারুকীর ৩য় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে চট্টগ্রাম ইতিহাস চর্চা কেন্দ্রের উদ্যোগে এক আলোচনা সভা ১ জুলাই বিকেলে চট্টগ্রাম নগরীর কাশফুল অডিটরিয়ামে চট্টগ্রাম ইতিহাস চর্চা কেন্দ্রের সভাপতি, ইতিহাস গবেষক সোহেল মুহাম্মদ ফখরুদ-দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রবীণ শিক্ষাবিদ ও সমাজকর্মী অধ্যাপক জিতেন্দ্রলাল বড়–য়া। প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট লেখক ও ইতিহাসবিদ অধ্যক্ষ মোহাম্মদ ইউনুচ কুতুবী। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন, অধ্যাপক দিদারুল আলম, কবি নাছির বিন ইব্রাহিম, সাংবাদিক তৌহিদুর রহমান, ছড়াকার সাফাত বিন সানাউল্লাহ, মোহাম্মদ নুরুল আলম, নয়ন দাশ, লিটন বড়ুয়া, কবির আহমদ, সাংবাদিক নুরুল আলম, সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, বেবী দাশ, সৈকত বড়ুয়া প্রমূখ। সভায় বক্তারা বলেছেন, বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে, মিয়া আবু মোহাম্মদ ফারুকীর অবদান অপরিসীম। তিনি স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশ গঠন ও বাংলাদেশের উন্নয়নে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক চর্চায় ব্যাপক কাজ করেছেন। তিনি চার হাজারেরও অধিক মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক প্রবন্ধ রচনা করেছেন এবং লিখিত প্রবন্ধগুলো বাংলাদেশের জাতীয় ও স্থানীয় দৈনিক, সাপ্তাহিক ও মাসিক পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে। মিয়া আবু মোহাম্মদ ফারুকীর অভিজ্ঞতার আলোকে “আমার দেখা সেকাল ও একাল” নামে একটি অসাধারণ গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে। বক্তারা আরো বলেছেন, মিয়া মোহাম্মদ ফারুকীর ভাষা আন্দোলনের ইতিহাসে তাঁর অবদান রয়েছে। তিনি জীবনে একাধিকবার কারাবরণ করেছেন দেশ ও দেশের মানুষের জন্য করতে গিয়ে। ৬৯ এর উত্তাল গণআন্দোলন, ৭০ সালের ঐতিহাসিক নির্বাচনে জননেতা এম.এ আজিজ ও জহুর আহমদ চৌধুরীর মতো নেতাদের সাথে থেকে মিয়া মোহাম্মদ ফারুকী চট্টগ্রামের আন্দোলন সংগ্রামে বলিষ্ঠ নেতৃত্ব দেন। ৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে তিনি প্রান্তিক জনপদ পটিয়ায় মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষে গণজাগরণ ও গণআন্দোলন গড়ে তোলেন। তাঁর মত ত্যাগী নেতা বর্তমান সময়ে বিরল। সভা শেষে মিয়া আবু মোহাম্মদ ফারুকীর আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মুনাজাত ও দোয়া পরিচালনা করেন অধ্যাপক মাওলানা মুহাম্মদ আনোয়ার হোসেন।

আরো খবর

Leave a Reply