বাংলাদেশ, সোমবার, ২২শে জুলাই, ২০১৯ ইং, ৭ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ।

ছাত্রসেনা বৃহত্তর চট্টগ্রামের লিডারশীপ ডেভেলপমেন্ট ট্রেনিং প্রোগ্রামে ইসলামী ফ্রন্ট মহাসচিব এম এ মতিন:

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিনির্ভর শিক্ষা ও সঠিক নেতৃত্বে রয়েছে সফলতা

বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট মহাসচিব জননেতা মাওলানা এম এ মতিন বলেন, একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় দক্ষ ও প্রশিক্ষিত নেতৃত্ব সৃষ্টি করতে হবে। আমরা প্রায়ই মালয়েশিয়া, জাপান, সিঙ্গাপুর ও কোরিয়াকে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে উল্লেখ করে থাকি। কিন্তু আমরা ভুলে যাই যে, এসব দেশ বিশেষ করে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিনির্ভর শিক্ষা ও সঠিক নেতৃত্বের কারণেই এতটা চমকপ্রদ উন্নয়ন অর্জন করতে পেরেছে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের ধ্বংসস্তুপ থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে উন্নয়নের লক্ষ্যে এরা দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তোলার জন্য প্রয়োজনীয় কর্মসূচি ও পরিকল্পনা প্রণয়ন করেছে। আমাদের বাংলাদেশকেও এগিয়ে যেতে হবে, বিভিন্ন ক্ষেত্রে আমরা উন্নতি করেছি। তবুও বিভিন্ন সেক্টরে আমাদের দুর্বলতা রয়েছে। বিশেষতঃ দক্ষ রাজনৈতিক নেতৃত্ব, অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ হতে না পারলে নতুন বিশ্বের চ্যালেজ্ঞ মোকাবেলা করা সম্ভব হবে না। প্রত্যেক রাজনৈতিক-অরাজনৈতিক সংগঠনের মূল লক্ষ্য মানবকল্যাণ ও দেশকে এগিয়ে নেওয়া। এজন্য প্রত্যেক সংগঠনের নেতৃত্বকে অত্যাধুনিক প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষতা অর্জন করতে হবে। এভাবে শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দেশের নেতৃত্ব সম্পদ হিসেবে গণ্য হবে।
বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসেনা বৃহত্তর চট্টগ্রামের উদ্যোগে আজ ২২ জুন’১৯ শনিবার সকাল থেকে দিনব্যাপী চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের বঙ্গবন্ধু হলে অনুষ্ঠিত লিডারশীপ ডেভেলপমেন্ট ট্রেনিং প্রোগ্রাম (এলডিটিপি)তে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট মহাসচিব জননেতা আল্লামা এম এ মতিন উপরোক্ত কথাসমূহ বলেন। ট্রেনিং প্রোগ্রামে সভাপতিত্ব করেন, ছাত্রসেনার কেন্দ্রীয় সভাপতি জি.এম শাহাদত হোসাইন মানিক। উদ্বোধক ছিলেন ছাত্রসেনার প্রতিষ্ঠাতা সেক্রেটারি সৈয়্যদ মুহাম্মদ ইব্রাহিম। প্রধান বক্তা ছিলেন, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের প্রেসিডিয়াম সদস্য পীরে তরীক্বত সৈয়দ মুহাম্মদ মছিহুদ্দৌলা। নির্ধারিত বিষয়ের উপর প্রশিক্ষণ প্রদান করেন, আহলে সুন্নাত ওয়াল জমা’আত সমন্বয় কমিটির সদস্য সচিব এডভোকেট মোছাহেব উদ্দিন বখতিয়ার, ইসলামী ফ্রন্টের সহ-আন্তর্জাতিক সচিব ইঞ্জিনিয়ার মুহাম্মদ আমান উল্লাহ, তথ্য ও প্রযুক্তি সচিব মুহাম্মদ আবদুর রহিম।
ছাত্রসেনার কেন্দ্রীয় সেক্রেটারি ইমরান হুসাইন তুষার ও আলী আকবরের সঞ্চালনায় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ সচিব অধ্যক্ষ আল্লামা তৈয়্যব আলী, প্রকাশনা সচিব অধ্যক্ষ আবু তালেব বেলাল, প্রচার সচিব মাওলানা রেজাউল করিম তালুকদার, সহ-দপ্তর সচিব ইঞ্জিনিয়ার নূর হোসাইন, চট্টগ্রাম মহানগর দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা নুরুল ইসলাম জিহাদী, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা সেক্রেটারি মাস্টার আবুল হোসাইন, সাংগঠনিক সম্পাদক আলী হোসাইন, খোদ্দামুল মুসলেমিনের কর্মকর্তা মুহাম্মদ কামরুল ইসলাম, চট্টগ্রাম মহানগর উত্তর যুবসেনার সভাপতি জসিম উদ্দিন, সেক্রেটারি হাবিবুল মোস্তফা সিদ্দিকী, মহানগর দক্ষিণ সেক্রেটারি এনামুল হক। অন্যান্য অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ইতিহাস গবেষক সোহেল ফখরুদ্দীন, ছাত্রসেনার সাবেক সভাপতি এইচ এম শহিদ উল্লাহ, সাবেক সহ-সভাপতি নুরুল্লাহ রায়হান খান, সাবেক সেক্রেটারি সৈয়্যদ মোহাম্মদ খোবাইব, সাবেক অর্থ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল মামুন, সাংবাদিক এম.এ হোসাইন, সাংবাদিক গোলাম সরোয়ার, জি.এম আকবর খান, নাজিম উদ্দীন খান, দিদারুল আলম, মুহাম্মদ ইদ্রিচ, মুহাম্মদ ফরিদুল ইসলাম, মারূফ রেযা, মহিউদ্দীন চৌধুরী, দিদারুল ইসলাম কাদেরী, মফিজুর রহমান, মাছুমুর রশিদ কাদেরী, নুরুল ইসলাম হিরু, মামুনুর রশিদ, রিয়াজ হোসাইন, মিনহাজ উদ্দীন, রেজাউল করিম ইয়াসিন, ইসমাইল হোসেন মুন্না, মুহাম্মদ বাকি বিল্লাহ, মুহাম্মদ এরশাদুল করিম প্রমুখ
বক্তারা বলেন, সাংগঠনিক দায়িত্ব পালনকালে দুঃসময় ও প্রতিকূল পরিস্থিতিতে ধৈর্য্য সহকারে কঠিন মনোবল, সাহসিকতা, দক্ষতা ও আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব পালন করে নিজের ভবিষ্যত তথা দেশ ও জাতির কল্যাণে আত্মনিয়োগ করতে এবং প্রতিবছর এ ধরনের প্রশিক্ষণ অব্যাহত রাখতে হবে। তৃণমূল নেতৃত্বকে গঠনমূলক প্রশিক্ষণের মাধ্যমে এগিয়ে নিতে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের প্রতি আহ্বান জানান। উল্লেখ্য- ট্রেনিং প্রোগ্রামে বৃহত্তর চট্টগ্রামের তিনশতজন তৃণমূল দায়িত্বশীল নেতৃবৃন্দ প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন।

আরো খবর

Leave a Reply