বাংলাদেশ, সোমবার, ২২শে জুলাই, ২০১৯ ইং, ৭ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ।

মিমি সুপার মার্কেটে অভিযান, জরিমানা

মিমি সুপার মার্কেটে যারা এবার ঈদ শপিং করতে যাচ্ছেন তাদেরকে ভালোই বোকা বানিয়ে ঠকিয়ে যাচ্ছেন বিক্রেতারা

 

নগরীর অভিজাত শপিংমল মিমি সুপার মার্কেটে ক্রয়মূল্যের চেয়ে তিনগুণ বেশি দামে কাপড় বিক্রি হচ্ছে। শুক্রবার (২৪ মে) জেলা প্রশাসনের পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে এসব অনিয়ম ধরা পড়ে।

অভিযানে অতিরিক্ত দামে কাপড় বিক্রি ছাড়াও ভ্যাট ফাঁকির অনিয়ম খুঁজে পেয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।অভিযান পরিচালনার সময় জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাহমিলুর রহমান ও তৌহিদুল ইসলাম মিমি সুপার মার্কেটের মালিক সমিতির সভাপতি জাকির হোসেনকে এক লাখ টাকা জরিমানা করেছে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তৌহিদুল ইসলাম বলেন, ‘মিমি সুপার মার্কেটে প্রবেশ করতেই কাপড়সহ অন্যান্য পণ্য বিক্রিতে নানা কারিসাজি ও অনিয়মের চিত্র ফুটে ওঠে ৷ অধিকাংশ দোকানে পাওয়া যায়নি মূল্যতালিকা।

দোকানগুলো পরিদর্শন করে দেখা যায়, ভারত থেকে আমদানিকৃত শাড়ী, লেহেঙ্গা, থ্রি-পিস, বাচ্চাদের ড্রেসের কাগজপত্রের মূল্যের সাথে দোকান মালিকরা কোড আকারে পণ্যের গায়ে ও রেজিস্টারে যে মূল্য লিখে রাখছেন তার মধ্যে রয়েছে বিশাল ব্যবধান ।

তাছাড়া অধিকাংশ কাপড় আমদানি মূল্যের চাইতে অধিক মূল্যে বিক্রি হচ্ছে।

সরেজমিনে আরো দেখা যায়, কোনো কোনো দোকানে শাড়ি, লেহেঙ্গা, থ্রি-পিস ৩০ থেকে ৩৫ হাজার টাকাতেও বিক্রি হচ্ছে। কিন্তু দোকান মালিকরা যে সকল কাগজপত্র প্রদর্শন করেছেন সেগুলোর কোনোটিতেই আমদানি কিংবা ক্রয় মূল্য এতো মাত্রাতিরিক্ত বা অধিক পরিমাণে নেই।

এসব অনিয়ম ও ঘটনা আমলে নিয়ে মিমি সুপার মার্কেটের দোকান মালিক সমিতি সভাপতি জাকির হোসেনকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে বলে জানান নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তৌহিদুল ইসলাম ।

আরো খবর

Leave a Reply