বাংলাদেশ, সোমবার, ১৯শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ৩রা কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

পারকি সমুদ্র সৈকতে মাদক ও দেহ ব্যবসা বন্ধের দাবিতে যুব সমাজের মানববন্ধন

দৃশ্যপট পারকী বীচ: পতিতারা প্রকাশ্য খোদ্দর খুঁজছে এবং দোকানের মালিকরা দালালি করছে

চট্টগ্রাম আনোয়ারা উপজেলার অন্তর্গত প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভুমি পারকি সমুদ্র সৈকত।সরকারী বেসরকারী অতিরিক্ত কোনো ভালোমানের প্রতিষ্ঠান না থাকলেও প্রতিদিন সৌন্দর্য উপভোগ করতে হাজারো পর্যটকের ঢল নামে এই সৈকতে। অনেক বছর ধরে সুনাম অর্জন করে আসলেও সম্প্রতি কিছু অনিয়ম ও নীতিবহির্ভুত কাজের জন্য দুর্নাম ছড়াচ্ছে এই সৈকতের। সৈকতের এই দুর্নামের কারনে মুখ গুছিয়ে নিচ্ছে পর্যকটরা,স্থানীয় সৈকতের ব্যাবসায়ীরা প্রকাশ্য চালিয়ে যাচ্ছে পতিতালয় ও মাদকের আসর। প্রতিটা দোকানের পিছনে ছোট ছোট রুমে আড্ডখানায় মেতে উঠেছে এই মাদক সেবন ও দেহ ব্যাবসায়। পরিস্থিতি এমন হয়ে দাড়িয়েছে যে পতিতারা প্রকাশ্য খোদ্দর খুঁজছে এবং দোকানের মালিকরা দালালি করছে। পতিতার তৎপরতায় সৈকতে ছড়িয়ে গেছে নোংরামি পরিবেশ, দোকানের নামনে সেজেগুছে বসে থাকেন এই পতিতারা খোর্দ্দরের সাথে টাকা নিয়ে দর দাম করেন দোকানের মালিকরা। দিন শেষে কন্ট্রাকের নির্দিষ্ট টাকা দিতে হয় এই পতিতাদের। স্থানীয় বহু যুবক অভিযোগ করে বলেন, “স্থানীয় এই পতিতা ব্যবাসায়ীদের বিরুদ্ধে কিছু করা যাচ্ছে না একই পরিবারের ৩/২ জন সদস্য এই ব্যবসায় জড়িত রয়েছে বলে জানা গেছে। প্রতিবাদ করতে গেলে তাদের কটুকথা ও ঝগড়া-বিবাদে মান সম্মানের প্রশ্নে নীরব থাকতে হয় শিক্ষিত-সচেতন মানুষদের। এমতব্যস্থায় বহুুবার স্থানীয় ২নং বারশত ইউপি চেয়ারম্যান এম.এ কাইয়ূম শাহ ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার তৎপরতায় অভিযান চালানো হয় এবং প্রকাশ্য খাঁট পোড়ানোর পাশাপাশি ওয়ার্নিং দেওয়া হয়। এরপরেও চেয়ারম্যান ও সবার প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুল দেখিয়ে চালিয়ে যাচ্ছে এই মাদক ও দেহ ব্যবসা। প্রশাসনও নীরব দর্শকের ভুমিকা পালন করতে দেখা গেছে। স্থানীয় সচেতন এলাকাবাসী যুবসমাজ এবং ছাত্রদের পক্ষ থেকে বার বার প্রতিবাদ করা হয়েছে।

২৬শে এপ্রিল জুমার নামাজের পর পারকি সৈকতে যাওয়ার পথে পারকি বাজারের ব্রীজ ঘাট ও বটগাছ তলাই কিছু পতিতাদের আটক করে এই যুব সমাজ ও লাটি দিয়ে পিটিয়েছে এই পতিতাদের। স্থানীয় কিছু যুবকের অভিযোগ- যে মাদক ও পতিতাদের বিরুদ্ধে বাঁধা ও প্রতিবাদ করায় কর্ণফুলি থানার কিছু পুলিশ সদস্য এসে নানা হুমকি দিয়ে যাচ্ছে পতিতা বন্ধের অভিযান বা কোন প্রতিবাদ করলে তাদের বিরুদ্ধে মামলা করার ভয় দিয়ে যাচ্ছে প্রতিনিয়ত এই পারকি সমুদ্র সৈকতকে আগের মতন ফিরিয়ে আনতে এবং নির্বিঘ্নে চলাচলের আস্থা ফিরিয়ে আসা সময়ের ব্যাপার। তাছাড়া,স্কুল কলেজের কিছু যুবক যুবতির বেহায়াপনার প্রতিবাদ করেন এই যুব সমাজ। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন সিউ এফ এল সড়কের রাঙ্গাদিয়া পুলিশ ফাঁড়ি দিয়ে যাওয়ার পথে গ্রেফতারের ভয়ে বেছে নিচ্ছে অন্য সড়ক পারকি থেকে গ্রামের রাস্তা কালিবাড়ী সড়কটের চলাচল পথ। ভবিষ্যৎ এই সড়কে যেন প্রশাসন অবস্থান করে যাতে মাদক ও পতিতাদের বেহায়াপনা বন্ধ হয় মানববন্ধনে তারা প্রশাসনের কাছে জোর দাবী জানান।

শেয়ার করুনঃ

আরো খবর

Leave a Reply