বাংলাদেশ, শনিবার, ১৭ই আগস্ট, ২০১৯ ইং, ২রা ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

হার্টে ব্লক, ওবায়দুল কাদেরকে নেয়া হচ্ছে সিঙ্গাপুর

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের হার্টে ব্লক ধরা পড়েছে বলে জানিয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের চিকিৎসকরা। আজ রোববার সকালে তার এনজিওগ্রাম শেষে চিকিৎসকরা একথা জানান।

আওয়ামী লীগের উপ-দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘ওনার ব্লক ধরা পড়েছে। এখন রিং পরানো হবে। এজন্য একটি বিশেষজ্ঞ বোর্ড গঠন করা হয়েছে। তারা বৈঠকে বসেছেন।’ তার জন্য দলের পক্ষ থেকে দেশবাসী ও নেতাকর্মীদের কাছে দোয়া কামনা করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে ওবায়দুল কাদেরকে সিঙ্গাপুর নেয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন দলের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এবং তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ।তিনি বলেন, ‘মেডিকেল ইস্যুতে চিকিৎসকরাই বলবেন। আমাদের দলের পক্ষ থেকে ওনাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর নিয়ে যাওয়ার জন্য যোগাযোগ করছি। আশা করছি তাকে শিগগিরই সিঙ্গাপুর নিয়ে যেতে পারবো।’

উল্লেখ্য, হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে রোববার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে ভর্তি করানো ৬৭ বছর বয়সী ওবায়দুল কাদেরকে।ওবায়দুল কাদেরের স্ত্রী আইনজীবী ইসরাতুন্নেসা হাসপাতালে উপস্থিত রয়েছেন। এছাড়াও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম, দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, উপ দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়াসহ নেতাকর্মীরা উপস্থিত রয়েছেন।রাজশাহী সফররত আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওবায়দুল কাদেরের সার্বক্ষণিক খোঁজ-খবর নিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন মাহবুব-উল আলম হানিফ।এর আগে, মন্ত্রীর জনসংযোগ কর্মকর্তা আবু নাছের জানান, সকালে ফজরের নামাজ শেষে হঠাৎ করেই শ্বাসপ্রশ্বাসে সমস্যা হচ্ছিল। তাৎক্ষণিক তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। সেখানে চিকিৎসকরা তাকে সিসিইউতে রাখেন। সেখানে প্রাথমিক চেকআপ শেষে, দ্রুত এনজিওগ্রাম করার পরামর্শ দেন।বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্ডিওলজি বিভাগের চেয়ারম্যান সৈয়দ আলী আহসান বলেন, ‘এনজিওগ্রাম করে তিনটি ব্লক ধরা পড়েছে। এরমধ্যে একটি ওপেন করা হয়েছে। সকালের চেয়েও এখন শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হলেও পরিস্থিতি এখনও সংকটাপন্ন। ৭২ ঘণ্টা না গেলে কিছু বলা যাবে না।’

আরো খবর

Leave a Reply