জানুয়ারি ২৫, ২০২২ ২:০৩ পূর্বাহ্ণ

ইয়াবা পাচার বন্ধে মিয়ানমারের সঙ্গে আলোচনা

ইয়াবাসহ কোনো মদক বাংলাদেশে তৈরি হয় না দাবি করে মন্ত্রী বলেন, “ভারতীয় সীমান্ত দিয়ে ফেন্সিডিল আসে। সেটা অনেক কমে গিয়েছে। ভারত সরকার আমাদের সহযোগিতা করেছে। মিয়ানমার সরকারের সাথে কথা বলার পরও ইয়াবা বন্ধে সুফল পাওয়া যাচ্ছে না। তারপরও কথা বলে যাচ্ছি।

সভায় মাদক ছাড়াও সাম্প্রতিক সময়ের জঙ্গি তৎপরতা বৃদ্ধি, যানজটসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করেন জনপ্রতিনিধি ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

রোববার ভোরে বঙ্গোপসাগরে একটি মাছ ধরার ট্রলার থেকে ২০ লাখ ইয়াবাসহ নয়জনকে আটক করেছে র‌্যাব।

এর আগে গত বছরের ১৭ জানুয়ারি একটি মাছ ধরার ট্রলার থেকে ২৭ লাখ ৫০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করেছিল র‌্যাব।

র‌্যাবের দাবি, মিয়ানমার ও বাংলাদেশের একটি সংঘবদ্ধ চক্র মাছের ব্যবসার আড়ালে ট্রলারে করে ইয়াবা নিয়ে চট্টগ্রামের উপকূলে আসে।

এর আগে ২০১৫ সালের ফেব্রুয়ারিতে চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙরে একটি ট্রলার থেকে ১৫ লাখ ইয়াবা  উদ্ধার করে নৌবাহিনী। এছাড়া বিভিন্ন সময়ে কক্সবাজার থেকে চট্টগ্রাম হয়ে ঢাকার পথে বিভিন্ন স্থানে ধরা পড়েছে ইয়াবার বেশ কয়েকটি বড় চালান।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর ও দুই দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী ইয়াবা পাচার রোধে যোগাযোগ করে যাচ্ছে বলে জানান অঅসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

শেয়ার করুনঃ

Leave a Reply