বাংলাদেশ, বুধবার, ২৪শে জুলাই, ২০১৯ ইং, ৯ই শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

পেকুয়া থানা পুলিশের ফেব্রুয়ারী মাসের আইন-শৃংখলা প্রতিবেদন

এস.এম.ছগির আহমদ আজগরী
কক্সবাজারের পেকুয়ায় চলতি বছরের ফেব্রুয়ারী মাসের আইন-শৃংখলা পরিস্থিতির প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে থানা পুলিশ। এতে এলাকায় অপরাধ দমন ও অপরাধীদের গ্রেপ্তারে পুলিশের নানামুখী তৎপরতা বিষয়ের তথ্যাধি উল্লেখ করা হয়েছে। পেকুয়া থানা পুলিশের মাসিক আইন-শৃংখলা প্রতিবেদন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা এ. এস. আই মনিতোষ চাকমা ও এ এস আই সজিব চৌধুরী এ প্রতিবেদককে জানিয়েছেন, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারী মাসের বিভিন্ন সময়ে পৃথক অভিযানে বিজ্ঞ আদালতের জি.আর ও সি.আর মামলার প্রায় পৌনে শতাধিক ওয়ারেন্ট তামিল, অস্ত্র, গুলি, ইয়াবা ও গাঁজা উদ্ধার নিয়মিত মামলায় সংশ্লিষ্ট ২৯আসামী গ্রেপ্তার করে বিজ্ঞ আদালতে সৌপর্দ্দ করেছে পুলিশ। অপরাধ প্রবনতা বন্ধে সক্রিয় পেকুয়া থানা পুলিশ সংশ্লিষ্ট এলাকায় কঠোর নজরদারী অব্যাহত রাখায় পরিত্যাক্ত অবস্থায় ১টি আগ্নেয়াস্ত্র(এল.জি), ২রাউন্ড কার্তুজ, ১২৫পিস ইয়াবা ও ৩০০গ্রাম গাঁজা উদ্ধারসহ তার সাথে জড়িত একাধিক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করে মাদক আইনে মামলা রুজুর মাধ্যমে বিজ্ঞ আদালতে সৌপর্দ্দ করে। থানা সূত্র প্রদত্ত প্রতিবেদনে আরো জানা গেছে, চলতি বছরের ফেব্রুয়ারী মাসে পেকুয়া থানা পুলিশের পরিচালিত নিয়মিত ধারাবাহিক অভিযানে জি.আর মামলার-৫৮টি, সি.আর মামলার ৩৮টি ওয়ারেন্ট তামিলের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট পলাতক আসামীদের বিজ্ঞ আদালতে সৌপর্দ্দ করে পুলিশ। এছাড়া, একই মাসে সংঘঠিত বিভিন্ন অপরাধ মূলক ঘটনায় পুলিশ ১১টি নিয়মিত মামলা রুজু করে ঘটনায় জড়িত এজাহার নামীয় ২৯জন মামলার আসামীকে অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার পূর্বক আদালতে সৌপর্দ্দ করা হয়। এসময় পুলিশের অব্যাহত পৃথক অভিযানে ২৫পিস ইয়াবা ট্যাবলেট সহ চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী ইয়াবা শাহেদ, ১০০পিস ইয়াবাসহ সাবেকগুলদীর ইয়াবা স¤্রাট আবদুল করিম নামের দু’মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করে। এছাড়া, ৩০০গ্রাম গাঁজা উদ্ধার উদ্ধার পূর্বক তার সাথে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে মাদক আইনে ৩-৩টি মামলা রুজু করে বিজ্ঞ আদালতে সৌপর্দ করে। ফেব্রুয়ারী মাসে পেকুয়া থানা পুলিশ এলাকার আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি শান্ত, স্বাভাবিক ও নিয়ন্ত্রনে রাখার পাশাপাশি সাধারণ মানূষের জানমাল নিরাপত্তায় বিশেষ নজরদারী ও টহলাভিযান অব্যাহত রাখায় অপরাধ প্রবনতা নিয়ন্ত্রনে রাখতে সফলতা দেখিয়েছে পুলিশ। পুলিশের অব্যাহত ধারাবাহিক তৎপরতায় সর্বস্তরের মানূষ সন্তোষ জানিয়ে ও.সি’র নেতৃত্বের ভুয়সী প্রশংসা এবং থানা-পুলিশকে সাধুবাদ জানিয়ে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছে বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ। পেকুয়া থানার ওসি জিয়া মোঃ মোস্তাফিজ ভুঁইয়া এ প্রতিবেদককে জানিয়েছেন, পুলিশের নিয়মিত ধারাবাহিক অভিযানে গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে খুন, ধর্ষন, অপহরণ, লুঠতরাজ, মুক্তিপন আদায়, নারী ও শিশু নির্যাতন, যৌতুক, চুরি, ডাকাতি, দূস্যতাসহ খুন সহ ডাকাতি, পুলিশ এ্যাসল্ট, দাঙ্গা-হাঙ্গামা, প্রতারনা, মাদক সেবন ছাড়াও ব্যবসা এবং বন-ভুমি দূস্যতার ঘটনায় জড়িতের মামলা অভিযোগ ছিল। পেকুয়া থানা পুলিশ সূত্রে আরো জানা গেছে, কক্সবাজারের উপকুলীয় উপজেলা মডেল পেকুয়ার জনপদের মাটি ও মানূষের জিবনযাত্রার ধারাবাহিকতা স্বাভাবিক ও নিরাপদ রাখার পাশাপাশি এলাকায় চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, চাঁদাবাজি, বাল্য বিয়ে, যৌতুক, নারী নির্যাতন, ইভটিজিং, প্রতারনা, বন ও ভূমিদূস্যতা, পাহাড়কাটা এবং মাদকের বিকিকিনী বন্ধ সহ সকল প্রকার অপরাধ দমন, অপরাধীদের গ্রেপ্তার, সরকারী বেসরকারী সম্পদ এবং সাধারণ মানূষের জানমাল রক্ষায় নিয়মিত টহলাভিযানের পাশাপাশি পোষাকি ও সাদা পোষাকের নজরদারী মনিটরিং তৎপরতা জোরদার রয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। পেকুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ(প্রশাসন) জিয়া মোঃ মোস্তাফিজ ভুঁইয়া চলতি বছরের গত ফেব্রুয়ারী মাসের পুলিশের অভিযানের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, কর্মস্থলে আইনের শাসন প্রতিষ্টার পাশাপাশি অপরাধ মুক্ত জনপদ বিনির্মাণ ও জনগনের বন্ধু হিসাবে পরিচিত পুলিশের ভাবমূর্তি উত্তরোত্তর বাড়াতে পেকুয়া থানার পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা সব সময় সজাগ ও সতর্ক অবস্থানে ছিল আছে থাকবে। তিনি, এলাকার আইন-শৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক ও শান্ত রাখার পাশাপাশি দেশের আইন শৃংখলা রক্ষায় নিয়োজিত পুলিশ বাহিনীর তৎপরতা ও সাফল্যের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে স্থানীয় সাংবাদিক, জনপ্রতিনিধি ও সুশীল সমাজের নেতৃস্থানীয় সহ সমাজের সকল শ্রেণীপেশার মানুষকে আইন-শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি সহযোগিতা প্রদানের উদ্ধার্থ আহব্বান জানান।

আরো খবর

Leave a Reply