বাংলাদেশ, রবিবার, ১৮ই আগস্ট, ২০১৯ ইং, ৩রা ভাদ্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

এইচআইভি আক্রান্ত পাত্রপাত্রী চাই

ভারতের এইচআইভি ভাইরাসে আক্রান্তদের জন্য সাড়ম্বরে খোলা হয়েছে বিয়ের ওয়েবসাইট। সেখানে কোনও কুণ্ঠা বা আড়াল নেই, নেই পরিচয় লুকোনোর চেষ্টাও। স্বেচ্ছায় নিজেদের ছবি এবং অন্যান্য তথ্য পোস্ট করছেন পাত্রপাত্রীরা। এক-একটি সাইটের মাধ্যমে বছরে গড়ে ১০০-১৫০ জন এইচআইভি আক্রান্ত পুরুষ ও নারীর বিয়ে হচ্ছে।শুধু এইচআইভি-আক্রান্তদের জন্যই এমন সাইট রয়েছে চার-পাঁচটি। এছাড়া অন্তত চারটি সাইটে ‘স্পেশ্যাল কেস’ বলে একটি বিভাগ রাখা হচ্ছে। যেখানে এইচআইভির সঙ্গে থ্যালাসেমিয়া বা ক্যানসার আক্রান্ত, শারীরিক প্রতিবন্ধীদের বিয়ের সম্বন্ধ করা হচ্ছে। সমাজকর্মীরা মনে করছেন, এই সাইটগুলো তৈরি হওয়াতেই বোঝা যাচ্ছে সামাজিক ভাবনায় সদর্থক বদল শুরু হচ্ছে।মহারাষ্ট্রের ট্রান্সপোর্ট কর্মকর্তা অনিল ভালিভ ২০০৬ সাল থেকে একটি সাইট চালু করেন। এখন পর্যন্ত সেখানে প্রায় আড়াই হাজার এইচআইভি আক্রান্তের বিয়ে হয়েছে। আবার বেঙ্গালুরু থেকে ২০১৩ সালে একটি সাইট চালু করেন ধনঞ্জয় নামে এক ব্যক্তি। আর এক সাইটের শাখা রয়েছে গুরুগ্রাম ও কলকাতায়।

এই রকম সাইটের মাধ্যমে বিয়ে হয়েছে এমন এক ব্যক্তি জানালেন, ‘নিজের রোগ আছে জানার পর কোনও সুস্থ মেয়েকে বিয়ের প্রশ্ন ওঠে না। আবার বিয়ে না করলে কেন করছি না সেই প্রশ্নে জেরবার হতে হয়। এই রকম একটা দিশেহারা অবস্থায় মুশকিল আসান করেছিল ওয়েবসাইটই।’

এইচআইভি-র চিকিৎসা এখন আগের থেকে উন্নত। মায়ের থেকে সন্তানে রোগ সংবহনও অনেক ক্ষেত্রে আটকানো যায়। ফলে এইচআইভি আক্রান্তদের বিবাহিত জীবন যাপনের ইচ্ছা বাড়ছে, বলে জানালেন চিকিৎসকরা।

আরো খবর

Leave a Reply