বাংলাদেশ, রবিবার, ১৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং, ৫ই ফাল্গুন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ।

ভোলা জেলা কারাগারে নানা সমস্যা

ভোলা প্রতিনিধি
ভোলায় বিদ্যুতের লোডশেডিং, জনবল, ফ্যান সংকট, জরার্জীর্ণ ভবন ও গ্যাস সুবিধা না থাকাসহ নানা সমস্যায় জর্জরিত  হয়ে আছে ভোলা জেলা কারাগার। এতে গরম আর গরম চরম দুর্ভোগে পোহাচ্ছেন জেল খানার বন্দিরা। এছাড়ও কারাগারে ধারণ ক্ষমতার অধিক ৫গুন বন্দিতো আছেই।
এতে গাদাগাদি করে থাকতে হচ্ছে বন্দিদের। যার ফলে একদিকে যেমন দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন বন্দিরা অন্যদিকে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। কারাগারে অবকাঠামো ও জনবল নানা সমস্যায় জর্জরিত।এসব সমস্য সমাধানের দাবী বন্দিদের।
সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে, ১৯৯৩ সালে শহরের চরনোয়াবাদ পুলিশ লাইন এলাকায় স্থাপিত হয় ভোলা জেলা কারাগারটি।
এতে ১০০ বন্দির ধারণ ক্ষমতার এ কারাগারে বর্তমানে ৪৭৫ জন বন্দি কারাগারে রয়েছে। এদের মধ্যে হাজতী ৩৭৫ জন ও কয়েদি ১০০ জন। যাদের মধ্যে নারী আছে ১৩ জন। দীর্ঘ দিন থেকে সংস্কার না হওয়ায় বন্দিদের ভবনটি জীর্ন দশায় পরিনত হয়েছে।
ভবনটি সংস্কার কিংবা নতুন ভবন প্রয়োজন। এছাড়াও ভবন সংকট রয়েছে। এদিকে, জেলা কারাগারে গ্যাস লাইন টানার কাজ হলেও গত ৭ মাস ধরে সংযোগ দেয়া হয়নি কবে হবে তাও জানে না জেল র্কতৃপক্ষ।
নেই কর্মকর্তা কর্মচারী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের জন্য কোন বিনোদনের ব্যবস্থা। স্টাফ কোয়াটারগুলোও নাজুক অবস্থা। জানা গেছে, জেলা কারাগারের নতুন জেলার যোগদানের পর থেকে কারাগারে বন্দিদের মধ্যে গণশিক্ষা কার্য্ক্রম শুরু করা হয়েছে।
এছাড়াও এ শিক্ষা কায্যক্রম নিয়মিত চালাতে বিভিন্ন সংস্থা থেকে সরঞ্জাম চাওয়া হয়েছে। অভিযোগ রয়েছে, বন্দিদের কাছ থেকে কেন্ট্রিনের খাবার উচ্চ মূল্য রাখা হচ্ছে। কারাগারে বন্দিদের ৬টি ওয়ার্ডে অধিকাংশ ফ্যান বিকল, এছাড়াও দৈনিক ৬/৭ ঘন্টা লোডশের্ডি থাকে। এতে গরম চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে বন্দিরা।

এ ব্যাপারে ভোলা জেলা কারাগারের জেলার আবদুল্লাহ আল-আলামিন বলেন, বন্দিদের ভবনটির নাজুক অবস্থা, এটি সংস্কার করা জরুরী প্রয়োজন। বিষয়টি আমার উর্ধ্বতন র্কতৃপক্ষকে জানিয়েছি। কর্তপক্ষ একটি ভবন সংস্কারের কাজ হাতে নিয়েছে। তিনি বলেন, বন্দিদের জন্য গনশিক্ষা কার্য্ক্রম চালু হওয়ার অনেকই এখন লিখতে পড়তে পারে। এ ছাড়া কারাগারের সার্বিক পরিস্হিতি অনেক ভালো কিন্তু অনেক অনেক গরম পড়ায় কারাবন্দিরা কষ্টে আছেন।

 

এই বিভাগের আরো খবর

আরো খবর

Leave a Reply