বাংলাদেশ, রবিবার, ১৯শে মে, ২০১৯ ইং, ৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ।

৫ জানুয়ারীর মত নির্বাচন হতে দেব না : সামশুল আলম

চট্টগ্রামের প্রাণ কেন্দ্র কোতোয়ালী-বাকলিয়া আসনটি গোটা দেশেরই আলোচিত অঞ্চল। এই অঞ্চলটিতে অতীতে বাঘা বাঘা নেতারাই নির্বাচন করে আসছেন। এবার আওয়ামী লীগ থেকে এ.বি.এম মহিউদ্দিন চৌধুরীর ছেলে ব্যারিষ্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী (নওফেল) কিংবা সাবেক সাংসদ জিয়া উদ্দিন বাবলু নির্বাচনের প্রার্থী হতে পারেন। অন্যদিকে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী এম.ই.বি গ্রুপের কর্ণধার সামশুল আলম অথবা ডা. সাহাদাৎ হোসেন মনোনয়ের জন্য দৌড ঝাপ করে চলেছেন। গত কয়েক দিন ধরেই চট্টগ্রাম শহর জুড়েই এই আসনের প্রার্থী নিয়ে চলছে নানান কানা ঘুষা। শেষ পর্যন্ত ধানের শীষ ও নৌকার প্রার্থী কে হচ্ছেন এই নিয়ে নানান মুখরোচক কথা ভোটারদের এখন মুখে মুখে। গেলবারের ধানের শীষের শক্ত প্রার্থী সামশুল আলম এবারও নির্বাচনে ধানের শীষ নিয়ে লড়তে আগ্রহী। মনোনয়পত্র সংগ্রহ করেছেন তিনি।

আলোচিত ও তৃণমূল মানুষের সাথে সম্পর্কীত সামশুল আলম অনলাইন দৈনিক বাংলা পোষ্টবিডি ডট কম ও সাপ্তাহিক পূর্ব বাংলাকে ১৯ নভেম্বর সোমবার রাতে টেলিফোনে বলেন, আমি মনোনয়ন পেলে আমার দল সমর্থিত সকল মনোনয়ন প্রার্থীদের আন্তরিকতার পরিবেশ তৈরী করে বেগম খালেদা জিয়াকে আসনটি উপহার দেব ইনশাল্লাহ্। এই আসনে আমি আগেও নির্বাচন করেছি। সকল স্তরের ও পেশার মানুষের সাথে আমার যোগাযোগ আছে। গত দশ বছরে তৃণমূল ভোটারদের সাথে আমার নিবিড় সম্পর্ক গড়ে উঠেছে। বৃহত্তর বাকলিয়ার সকল সমস্যা আমাদের চিহ্নিত আছে। সুযোগ পেলে জলাবদ্ধতা থেকে শুরু করে সন্ত্রাস ও মাদক নির্মূল করব। এখানে ২০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল ও মহিলা বিশ্ববিদ্যালয়  কলেজ করার পরিকল্পনা রয়েছে। জলাবদ্ধতা নিরসনে সিটি কর্পোরেশন ও সিডিএ’র সাথে সমন্বয় করে কাজ করব। ক্রীড়া উন্নয়ন ও রাস্তাঘাট সংস্কারতো করবোই।একটি স্যাটেলাইট শহরে পরিণত করতে চাই এই আসনটিকে। বাংলাদেশে ৫ জানুয়ারীর মত আর কোন নির্বাচন হতে দেবো না। প্রতিটি কেন্দ্র পাহারা দেবে দলের নেতা কর্মীরা। অতীতের মত নির্বাচন থেকে এবার সরে দাঁড়াবো না। আমরা নির্বাচন ও আন্দোলন এক সাথে করছি।

আরো খবর

Leave a Reply