তারেক-গয়েশ্বরকে বিএনপি থেকে সরিয়ে দিতে ষড়যন্ত্র!

  প্রিন্ট
(Last Updated On: নভেম্বর ৩, ২০১৮)

বহুল প্রতীক্ষিত সংলাপে অংশ নেননি বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।  দলের মধ্যে এ নিয়ে চলছে নানা আলোচনা-সমালোচনা। তারেক-গয়েশ্বরকে বিএনপি থেকে সরিয়ে দেয়ার পরিকল্পনা করা হচ্ছে এমন অভিযোগ এনে দলের স্থায়ী কমিটির এই সদস্য ঐক্যফ্রন্টের সংলাপ বয়কট করেছেন বলে বিশ্বস্ত সূত্র নিশ্চিত করেছে।

১ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় গণভবনে ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সংলাপে গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের অনুপস্থিতি ছিল নজরে পড়ার মতো।

এ বিষয়ে নাম প্রকাশ না করার শর্তে গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের একান্ত সহকারী বাংলানপোস্টকে জানান, জাতীয়তাবাদী দলের নেতৃত্ব নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নেয়ার পরিকল্পনা করছেন মির্জা ফখরুল ও মওদুদ আহমেদ।  তাই ইচ্ছে করে এই দুই নেতার পরামর্শে বিএনপি’র অন্যতম শীর্ষ নেতা বাবু গয়েশ্বরের নাম ঐক্যফ্রন্টের সংলাপের তালিকা থেকে বাদ দেয়া হয়।  এমন কী গয়েশ্বর চন্দ্র রায়কে দাওয়াত না দিয়েই মিডিয়াতে বলা হয়েছে তার নাম তালিকাতে ছিল।  এটা তার মতো জাতীয় নেতার জন্য চরম অপমানজনক।

তবে বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায়, মির্জা ফখরুল ও মওদুদ আহমেদ বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে জাতীয়তাবাদী দল থেকে বাদ দিতে যে ষড়যন্ত্র করছেন তার প্রতিবাদেই ঐক্যফ্রন্টের সংলাপে অংশ নেননি গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

এদিকে সূত্র বলছে, গণভবনে ১৪ দলীয় জোটের সঙ্গে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের সংলাপে প্রথমে ১৬ সদস্যদের প্রতিনিধিদের নামের যে তালিকা করা হয়েছিল সেই তালিকায় গয়েশ্বরের নাম ছিল না।  পরে বৃহস্পতিবার (১ নভেম্বর) তড়িঘড়ি করে ঐক্যফ্রন্ট নতুন করে পাঁচ সদস্যের নামের তালিকা আওয়ামী লীগের কাছে পাঠায়।  সেখানে বিএনপি নেতা আব্দুল মঈন খান ও গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের নাম যুক্ত করা হয়।

এদিকে সংলাপে উপস্থিত না থাকার কারণ জানতে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের আস্থাভাজন হিসেবে দলে পরিচিত গয়েশ্বরের মোবাইল ফোনে কল করা হলে তা বন্ধ পাওয়া যায়।

এই বিষয়ে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক ও গয়েশ্বর রায়ের মেয়ে অপর্ণা রায় মুঠোফোনে ক্ষোভের সাথে জানান, ১ নভেম্বর বৃহস্পতিবার তার বাবা গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের জন্মদিন ছিল।  বাবা গ্রামের বাড়িতেই ছিলেন।  হঠাৎ সকাল থেকে বিএনপি’র ফখরুল পন্থী নেতাকর্মীরা তাদের গ্রামের বাড়িতে বাবার সাথে দেখা করতে আসেন।  বাবা তাদের সাথে দেখা করতে অস্বীকৃতি জানালে স্থানীয় নেতাকর্মীরা উত্তেজিত হয়ে উঠেন।  সে সময় দেশীয় অস্ত্র নিয়ে বিএনপি’র ফখরুলপন্থী নেতাকর্মীরা বাড়ির আশেপাশে অবস্থান করেন বলেও অভিযোগ করেন গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের কন্যা।

অপর্ণা রায় আরো বলেন, বাবা ১ নভেম্বর সকাল থেকেই শারীরিকভাবে অসুস্থ বোধ করায় বাসা থেকে বের হননি।  বর্তমানে তিনি আতঙ্কে রয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গ‌য়েশ্বর চন্দ্র রায়ের পুত্রবধূ নিপুন রায় চৌধুরী জানান, মির্জা ফখরুল ও মওদুদ আহমেদ দল ভাঙার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছেন।  দলের নেতা তারেক রহমানকে বাদ দিতে তারা মরিয়া হয়ে উঠেছেন।  বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের একান্ত আস্থাভাজন হওয়ায় সংলাপের তালিকায় গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের নাম ইচ্ছে করে বাদ দেয়া হয়েছে।  তাকে বিভিন্নভাবে ফখরুলপন্থীরা হুমকি-ধমকি দিচ্ছেন।  দলের নেতৃত্বে বিভাজন সৃষ্টি করাই মির্জা ফখরুল আর মওদুদ আহমেদের লক্ষ্য।  দলের নেতা তারেক রহমানের নির্দেশনা উপেক্ষা করে ফখরুলপন্থীরা প্রধানমন্ত্রীর সাথে সংলাপে গেছেন। গয়েশ্বর চন্দ্র রায় এখনও মনে করেন, খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখে সংলাপ কখনো গ্রহণযোগ্য হতে পারে না।

০ Comments

Leave a Comment

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password