বাংলাদেশ, শনিবার, ২০শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং, ৭ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ।

পটিয়ায় ২ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন হয়েছে-এমপি সামশুল হক

পটিয়ায় শোক দিবসের ঐতিহাসিক সভায় এমপি সামশুল হক
দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্র রুখে দিতে শেখ
হাসিনার নেতৃত্বে দেশবাসী প্রস্তুত
পটিয়ার সাংসদ আলহাজ্ব সামশুল হক চৌধুরী বলেছেন, ৭৫’র পনের আগস্ট স্বাধীনতা বিরোধীরা জাতির পিতাকে সপরিবারে হত্যা করে দেশের অগ্রযাত্রাকে ধূলিসাৎ করে দিয়েছিল। জাতির পিতা যখন একটি যুদ্ধ বিধ্বস্ত দেশকে পূনর্গঠন করে সামনে এগিয়ে যাচ্ছিলেন তখনই এ হত্যাকান্ড বিশ্ববাসীকে হতবাক করে দিয়েছিল। পরে হায়েনারা একের পর এক রাষ্ট্র ক্ষমতা দখল করে দেশকে লুট পাটের রাজত্ব কায়েম করে। কিন্তু সুদীর্ঘ ২১ বছর পর জাতির পিতার কন্যা শেখ হাসিনা রাষ্ট্র ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হয়ে বঙ্গবন্ধু সহ সকল মানবতাবিরোধী হত্যাকান্ডে যুক্ত অপরাধীদের বিচার সম্পন্ন করেন এবং দেশকে উন্নত রাষ্ট্রের কাতারে নিয়ে যাওয়ার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন তখনই আবারো উৎপেতে থাকা স্বাধীনতা বিরোধী ষড়যন্ত্রকারীরা নতুন করে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। তারা বিভিন্ন ষড়যন্ত্র করে বাংলাদেশকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছে। তিনি সকল ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে জাতিকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহবান জানিয়ে বলেন, বর্তমানে সারা দেশে উন্নয়নের মহোৎসব চলছে। যার ধারাবাহিকতায় পটিয়ায় ২ হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন হয়েছে। তিনি নিজ দলের দল দলছুট নেতাদের উদ্দেশ্যে বলেন, তৃণমূলের নামে বিশৃঙ্খলা করে যারা দলের ক্ষতি করতে চায় তারা নিজেরাই ইতিহাসের আস্তা খুড়ে নিক্ষিপ্ত হবে। কেননা দল ক্ষমতায় আছে বলেই আজ বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। তাই তিনি সকলকে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশের উন্নয়ন অগ্রগতির চাকাকে আরো গতিশীল করতে আসন্ন সংসদ নির্বাচনে নৌকাকে পুনরায় বিজয়ী করে শেখ হাসিনাকে পুনরায় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে রাষ্ট্র ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত করতে একযোগে কাজ করার আহবান জানান।
তিনি গতকাল পটিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক ঐতিহাসিক শোক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
পটিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আ.ক.ম সামশুজ্জামান চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র অধ্যাপক হারুনুর রশীদের সঞ্চালনায় প্রধান বক্তা ছিলেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী, পৌরসভা আ’লীগের সাবেক সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সামশুদ্দিন আহমেদ, চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবু জাফর চৌধুরী, জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান দেবব্রত দাশ, জেলা শ্রমিক লীগ সভাপতি নুরুল হাকিম, মহা নগর যুব মহিলা লীগের আহবায়িকা সায়রা বানু রৌশনী, আইয়ুব বাবুল, আবদুল খালেক চেয়ারম্যান, আলমগীর আলম, আজিমুল হক, ছৈয়দ চেয়ারম্যান, এম. এজাজ চৌধুরী, চেয়ারম্যান ইব্রাহিম বাচ্চু, কাউন্সিলর গোফরান রানা, জীবন আরা বেগম, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি বেলাল উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক এম.এ রহিম, পৌরসভা যুবলীগের সভাপতি নুর আলম সিদ্দিকী, সাধারণ সম্পাদক রফিকুল আলম, মাজেদা বেগম শিরু, এড. হোসেন রানা, রবিউল হোসেন রুবেল, মোহাম্মদ শফি, তারেকুর রহমান তারেক, আবু তৈয়ব সোহেল, কোরবান আলী, ইকবালুর রহমান ওপেল, নাজমুল সাকের সিদ্দিকী প্রমুখ। এছাড়াও ইউনিয়নের দলীয় চেয়ারম্যানবৃন্দ, ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি-সম্পাদকবৃন্দ, পৌর কাউন্সিলরবৃন্দ, উপজেলা ও ইউনিয়ন যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, মহিলা লীগ, শ্রমিক লীগ, ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 

আরো খবর

Leave a Reply