বাংলাদেশ, শনিবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ইং, ১১ই ফাল্গুন, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ।

অরাজনৈতিক আন্দোলনে রাজনৈতিক অনুপ্রবেশ দু:খজনক – হায়দার আলী চৌধুরী

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে হামলার প্রতিবাদে আলোচনা সভায় বক্তারা বলেছেন, শিক্ষার্থীদের অরাজনৈতিক আন্দোলনে রাজনৈতিক অনুপ্রবেশ দু:খজনক।
  আজ ৫ আগস্ট রবিবার বিকাল ৫টায় মোজাহের ভবন হলে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে হামলা ও দেশে অরাজক পরিস্থিতির সৃষ্টিকারীদের প্রতিবাদে আন্দরকিল্লা চত্ত্বরে এক বিক্ষোভ মিছিল শেষে প্রতিবাদ সভা মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও সাহিত্য চর্চা পরিষদের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনের সভাপতি মোহাম্মদ সালাউদ্দিন লিটনের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক এম. নুরুল হুদা চৌধুরীর সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির ধর্ম বিষয়ক উপ কমিটির সদস্য লায়ন আলহাজ্ব হায়দার আলী চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা লেখক কালাম চৌধুরী, বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চারনেতা স্মৃতি পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহিম, ডিজিটাল পাবলিসিটি সলিউশ্যান চট্টগ্রাম এর সহ সভাপতি জসিম উদ্দিন চৌধুরী ও কাজী মোহাম্মদ আবদুল হাই। আরো বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম সাহিত্য পাঠচক্রের সাধারণ সম্পাদক আসিফ ইকবাল, মোরা পত্র লেখক সমাজ এর সভাপতি সজল দাশ, চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সদস্য বোরহান উদ্দীন গিফারী, নারীনেত্রী সৈয়দা শাহানারা বেগম, ঝর্ণা নন্দী, কবি জান্নাতুল ফেরদৌস সোনিয়া, রুমকি সেনগুপ্তা, দেবেন্দ্র দাশ দেবু, রতন ঘোষ, মো: হানিফ প্রমুখ।
প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, আমরা কোমলমতি শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কিত। বিএনপি জামাত যুদ্ধাপরাধীর দোসরের সন্তানেরা অর্ডার দিয়ে স্কুল ড্রেস বানিয়ে এবং স্কুল ড্রেস পরিয়ে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে অনুপ্রবেশ করছে। শিক্ষার্থীদের মধ্যে অনুপ্রবেশকারীরা প্রবেশ করায় নানান ধরনের অন্তর্ঘাতমূলক ভায়োলেন্স করার অপচেষ্টা লক্ষ্য করছি। তাই শিক্ষার্থীদের অনুরোধ করব, আন্দোলন দীর্ঘায়িত না করে ঘরে ফিরতে। সরকার ধৈর্য্য ও সহনশীলতার সাথে পরিস্থিতির মোকাবেলা করছে। নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের উপর ভর করে উসকে দিয়ে গুজব ছড়িয়ে দুষ্কৃতকারীরা ধানমন্ডি ৩/এ আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর কার্যালয়ে হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও তীব্র প্রতিবাদ জানাই। দেশ এবং জনগণের শান্তির স্বার্থে অভিভাবকদের অনুরোধ ছেলেমেয়েদের তথা ছাত্রছাত্রীদের ঘরে ফিরিয়ে নেওয়ার আহ্বান জানান। যেহেতু সরকার শিক্ষার্থীদের সব দাবি মেনে নিয়ে ইতোমধ্যে বাস্তবায়নের কাজ করে যাচ্ছে তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপর আস্থা ও বিশ্বাস রেখে উক্ত দাবিগুলো বাস্তবায়নে সময় দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। আলোচনা সভা শেষে অতিথিবৃন্দ বঙ্গবন্ধু পুত্র শেখ কামালের জন্মদিন উদযাপন করে এবং তার স্মৃতির প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানান।

 

আরো খবর

Leave a Reply