বাংলাদেশ, সোমবার, ২২শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং, ৯ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ।

কাউন্সিলর মানিকের কান্ড, সাংবাদিককে হত্যার হুমকি!

নিজস্ব প্রতিবেদক
নগরীর ১৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর এ এফ কবির আহমেদ মানিক সাংবাদিক নুরুল আলম চৌধুরীকে ফোনে ডেকে নিয়ে পিস্তল তাক করে হত্যার হুমকি দেন। পূর্বের দায়ের করা মামলা প্রত্যাহার না করলে তাকে গাড়িচাপা দিয়ে মারার এবং নানান মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে হয়রানির কথাও বলেন তিনি।
ঘটনাটি গত ১ আগস্ট বুধবার বিকেলে লালখান বাজার সামছু কলোনীতে সংঘটিত হয়।
এ ব্যাপারে খুলশী থানায় সাধারণ ডায়েরী (জিডি নং ৪৭) লিপিবদ্ধ হয়।
জিডি সূত্রে জানা যায়, লালখান বাজার মতিঝর্ণা এলাকায় গত বছর ২৯ জানুয়ারি গণধর্ষণের এক ঘটনা স্থানীয় কাউন্সিলর এ এফ কবির আহমেদ মানিকসহ অপরাধীরা ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করেন। জানতে পেয়ে রহস্য উদঘাটনে দৈনিক সাঙ্গুর স্টাফ রিপোর্টার নুরুল আলম চৌধুরী ঘটনা স্থলে গেলে অপরাধীরা তার উপর চড়াও হয়। এক পর্যায়ে তাকে মেরে রক্তাক্ত করে। এ ব্যাপারে তিনি বাদী হয়ে খুুলশি থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার সূত্র ধরে পুলিশ কয়েকজন অপরাধীকে গ্রেফতার করলে কাউন্সিলর মানিক ও তার সাঙ্গপাঙ্গরা স্থায়ী বাসিন্দা নুরুল আলম চৌধুরীকে নানাভাবে হুমকি দিতে থাকেন। নিরাপত্তার কথা ভেবে রিপোর্টার নুরুল আলম চৌধুরী খুলশি থানায় জিডি দায়ের করেন।
সর্বশেষ গত ১ আগস্ট বুধবার বিকেলে নুরুল আলমকে ফোনে ডেকে নিয়ে স্থানীয় কাউন্সিলর মানিক মামলা প্রত্যাহারের কথা বলেন। অন্যথায় পিস্তল তাক করে তাকে হত্যার হুমকি দেন। এমনকি গাড়িচাপায় মেরে ফেলা ও মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে হয়রানির কথাও বলেন।
প্রাণভয়ে ভীত হয়ে নুরুল আলম খুলশি থানায় কাউন্সিলরের নামে পুনরায় জিডি নং ৪৭ দায়ের করেন।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে, জিডি’র সত্যতা স্বীকার করে খুলশি থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন বলেন, আমরা অপরাধীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছি। তিনি বাদীকে তার সাথে যোগাযোগ করারও পরামর্শ দেন।
ঘটনার বিস্তারিত জানতে স্থানীয় কাউন্সিলর এ এফ আহমেদ মানিককে সেল ফোনে বার বার চেষ্টা করেও পাওয়া যায়নি।
অভিযোগকারী সাংবাদিক নুরুল আলম চৌধুরী অজ্ঞাত স্থান থেকে ফোনে এ প্রতিবেদককে জানান, তিনি তার বৃদ্ধ মা ও পরিবার নিয়ে চিন্তিত। তিনি ও তার পরিবারকে রক্ষায় পুলিশ প্রশাসন ও সাংবাদিক সমাজের সহযোগিতা কামনা করেন।

আরো খবর

Leave a Reply