বাংলাদেশ, শুক্রবার, ২৬শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং, ১৩ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ।

চট্টগ্রামে নগর ওলামা কাউন্সিল সম্পন্ন

সভাপতি ড. জসিম নদভী ও সেক্রেটারি শেখ আমজাদ
ওলামা-মাশায়েখ হলেন প্রকৃত নায়ক, তাঁরা এগিয়ে সমাজে বিপ্লব সাধিত হবে
পীর সাহেব চরমোনাই
ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সংগ্রামী আমীর হযরত মাওলানা মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম (পীর সাহেব চরমোনাই) বলেছেন, ওলামায়ে কেরাম, পীর-মাশায়েখ ও ইমামগণই সমাজের প্রকৃত নায়ক। এদেশে ইসলাম প্রচারিত হয়েছে তাঁদের মেহনতের মাধ্যমে। এখনো প্রতি জুমাবার দেশের লাখো মসজিদ থেকে ইমাম-খতীবগণ একযোগে মুসলমানদেরকে ইসলাম বিষয়ে বক্তব্য পেশ করেন। যদি ইমাম-ওলামা-মাশায়েখ ঘুষ-দুর্নীতি, অন্যায়-অবিচার ও জুলুম-শোষণের বিরুদ্ধে এবং হকের পক্ষে কথা বলেন তাহলে সমাজে বিপ্লব সাধিত হবে ইনশাআল্লাহ। আজ (শুক্রবার) বেলা ৫ ঘটিকায় নগরীর মুসলিম ইউনিস্টিটিউট হলে জাতীয় ওলামা-মাশায়েখ ও আইম্মা পরিষদের নগর কাউন্সিলে প্রধান অথিতির বক্তব্যে তিনি উপর্যুক্ত কথা বলেন।
জাতীয় ওলামা-মাশায়েখ ও আইম্মা পরিষদের নগর সভাপতি ও কেন্দ্রীয় নেতা ড. জসিম উদ্দীন নদভীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কাউন্সিলে পীর সাহেব চরমোনাই আরও বলেন, অক্লান্ত পরিশ্রম এবং মেহনতের মাধ্যমে সারা দেশব্যাপী ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ একটি মজবুত সাংগঠনিক ভিত্তি তৈরি করেছে। এখন প্রয়োজন ওলামায়ে কেরামের পৃষ্ঠপোষকতা, দোয়া এবং তাঁদের যোগ্য নেতৃত্ব। দেশের চিন্তাশীল ওলামায়ে কেরাম নেতৃত্বের আসন গ্রহণ করলে জাতি ও দেশ উপকৃত হবে এবং বাংলাদেশে দুর্নীতি-অন্যায়-অবিচারমুক্ত একটি কল্যাণ রাষ্ট্রব্যবস্থা কায়েম হবে। এজন্য ওলামা-মাশায়েখকে তিনি জাতীয় ওলামা-মাশায়েখ ও আইম্মা পরিষদে শরীক হওয়ার জন্য উদাত্ত আহ্বান জানান।
কাউন্সিলে বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ ড. জসিম উদ্দীন নদভীকে সভাপতি ও অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা আমজাদ হোসেনকে সেক্রেটারি করে জাতীয় ওলামা-মাশায়েখ আইম্মা পরিষদের নগর কমিটি ঘোষণা করেন পীর সাহেব চরমোনাই। কাউন্সিলে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা গাজী আতাউর রহমান, ইসলামী চিন্তাবিদ ও গবেষক ড. আ ফ ম খালেদ হোসেন, ড. বেলাল নুর আজিজী, জামিয়া ইসলামিয়া পটিয়ার সিনিয়র শিক্ষক মাওলানা ওবাইদুল্লাহ হামযা, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক মাওলানা শহীদুল হক, হাফেজ মাওলানা শেখ আমজাদ হোসেন, আলহাজ ওয়ায়েজ হুসাইন ভূইয়া, মাওলানা জসিম উদ্দীন ফারুকী, হাফেজ মাওলানা মুসলেহ উদ্দীন, মাওলানা মুহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম জিহাদী, মাওলানা এমদাদুল্লাহ কবীর ভূঁইয়া, শিক্ষকনেতা কারী দিদারুল মাওলা, নুরুল বশর আজীজী, মাওলানা কামাল হোসেন সাকী, মুফতী ইবরাহীম আনোয়ারী প্রমুখ।

আরো খবর

Leave a Reply