বাংলাদেশ, শুক্রবার, ২৬শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং, ১৩ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ।

হাটহাজারী আহলে সুন্নাত ওয়াল জমা’আতের প্রীতি সমাবেশ

 

আহলে সুন্নাত ওয়াল জমা’আত সমন্বয় কমিটি হাটহাজারী উপজেলা শাখার ব্যবস্থাপনায় হাটহাজারী আনোয়ারুল উলুম নোমানিয়া ফাযিল মাদরাসা মিলনায়তনে প্রীতি সমাবেশ” আহলে সুন্নাত ওয়াল জমা’আত সমন্বয় কমিটি হাটহাজারী উপজেলা শাখার সভাপতি মাওলানা মীর মুহাম্মদ হাসানুল করিম মুনীরির সভাপতিত্বে ও আহলে সুন্নাত ওয়াল জমা’আত সমন্বয় কমিটি হাটহাজারী উপজেলা শাখার সদস্য সচিব মুহাম্মদ শাকুর মিয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের চেয়ারম্যান আল্লামা এম.এ. মান্নান। উদ্বোধক ছিলেন-ছিপাতলী জে.জি.এম. বহুমূখী কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ আল্লামা আবুল ফরাহ মুহাম্মদ ফরিদ উদ্দীন। প্রধান বক্তা ছিলেন আহলে সুন্নাত ওয়াল জমা’আত সমন্বয় কমিটির কেন্দ্রীয় সদস্য সচিব এডভোকেট মোছাহেব উদ্দীন বখতিয়ার। বিশেষ অতিথি ছিলেন-জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়ার অধ্যক্ষ সৈয়দ মুহাম্মদ অছিয়র রহমান আলকাদেরী, শায়খুল হাদীস আল্লামা হাফেজ মুহাম্মদ সোলায়মান আনছারী, লালিয়ারহাট হোসাইনিয়া সিনিয়র মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মুহাম্মদ তৈয়ব আলী, এডভোকেট মুহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, ড. মুহাম্মদ জালাল উদ্দীন আল আযহারী। বিশেষ বক্তা ছিলেন- আহলে সুন্নাত ওয়াল জমা’আত সমন্বয় কমিটি চট্টগ্রাম উত্তর জেলার প্রধান সমন্বয়ক অধ্যক্ষ আল্লামা সৈয়দ মুহাম্মদ খোরশিদ আলম, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মুহাম্মদ কাউছার হামিদ, বুড়িশ্চর জিয়াউল উলুম ফাযিল মাদরাসার উপাধ্যক্ষ মাওলানা সৈয়দ মুহাম্মদ নুরুল আমিন, ঢাকা সাভার বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের লেকচারার মুহাম্মদ এমরানুল ইসলাম, অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন ১৭৫৭ সালের এই দিনে ভারত বর্ষের সাতশ বছরের মুসলিম শাসনের যে বিপর্যয় বিজাতিদের হাতে শুরু হয়েছিল তা কিন্তু শেষ হয়ে যায়নি। বরং রং বেরং এর সমস্যা হয়ে দেখা দিচ্ছে ষড়যন্ত্রের এক একটা দিক। মাদক ও অপসংস্কৃতি ছড়িয়ে মুসলিম সমাজকে ধবংশ করা যেমন তাদের পুরানো চক্রান্তের অংশ, ঠিক তেমনি ইসলামের নামে উগ্র জঙ্গীবাদের জন্মটাও হয়েছে তাদেরই প্রয়োজনে, তারাই আক্বিদাগত উগ্রতার পৃষ্টপোষকতা দিয়ে আমাদের বিভক্ত করতে সউদী আরবের জন্ম দিয়েছে, দিয়েছে উগ্র সালাফী লা মাজহাবী মতবাদের জন্মসহ উগ্র শিয়াবাদের পৃষ্টপোষকতা। এরা সউদী আরব আর ইরানের মধ্যে উত্তেজনা বাড়িয়ে ফায়েদা হাছিলের মহড়ায় সফলকাম হয়েছে। মুসলিম বিশ্বের রাজনৈতিক দেউলিয়াত্বও তাদেরই অবদান। এ দুরাবস্থা থেকে আমাদের উঠে আসবার শপথ নিতে হবে। নিতে হবে সমম্বিত এবং গঠনমূলক কর্মসূচী। অনুষ্ঠানে অতিথি ও আলোচক ছিলেন- অধ্যক্ষ আবুল ফছিহ মুহাম্মদ আলা উদ্দীন, মাওলানা মুহাম্মদ নুরুল আলম, মাওলানা সৈয়দ মুহাম্মদ জুননুরাইন, মাওলানা আবুল হাসান মুহাম্মদ ওমাইর রজভী, মাওলানা ইকবাল হোসেন আলকাদেরী, মুহাম্মদ ফজলুল করিম তালুকদার, অধ্যাপক সৈয়দ মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দীন, মুহাম্মদ হারুন সওদাগর, এস.এম. ফখর উদ্দীন, মুহাম্মদ এনামূল হক ছিদ্দিকী, মুহাম্মদ আবুল হাশেম সওদাগর, মুহাম্মদ সেকান্দর মিয়া, মাওলানা কাজী মুহাম্মদ আবু সাঈদ, মুহাম্মদ তৌহিদুল আলম কোম্পানী, মাওলানা তফাজ্জল আহমদ চৌধুরী, ডা.সৈয়দ মুহাম্মদ জহুরুল হক, মুহাম্মদ কামাল পাশা, মাওলানা মুহাম্মদ নুরুল আনোয়ার, অধ্যাপক মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম, মাওলানা ইলিয়াছ চৌধুরী, মাওলানা ইউনুস হেলালী, মাওলানা ফোরকান উদ্দীন নূরী, মাওলানা মুহাম্মদ আবদুল মালেক, মাওলানা জসিম উদ্দীন, মাওলানা মুহাম্মদ সালাহ উদ্দীন শাহ, এম.এ.মনছুর, মুহাম্মদ অহিদুল আলম, ছগির আহমদ, মুহাম্মদ অছি উদ্দীন, সৈয়দ মুহাম্মদ নেজাম উদ্দীন, মুহাম্মদ মামুনুর রশিদ জাবের, হোসাইন মুহাম্মদ এরশাদ, মুহাম্মদ নাছির উদ্দীন রুবেল, মাওলানা মুহাম্মদ লোকমান, মুহাম্মদ সরওয়ার উদ্দীন চৌধুরী, মুহাম্মদ সেলিম উদ্দীন, হাফেজ মুহাম্মদ জয়নাল আবেদীন, মুহাম্মদ সাহেদুল আলম, মুহাম্মদ বখতিয়ার উদ্দীন, সৈয়দ মুহাম্মদ রাকিবুল ইসলাম, মুহাম্মদ আবদুল মোতালেব রাজু, মুহাম্মদ আবদুল্লাহ আল ফারুক, মুহাম্মদ আবদুল কাদের আল মজিদ, মুহাম্মদ মহি উদ্দীন প্রমুখ।

আরো খবর

Leave a Reply