সুন্দরগঞ্জের চন্ডিপুর ইউপি নির্বাচন ২৬ জুন

  প্রিন্ট
(সর্বশেষ আপডেট: জুন ২৪, ২০১৮)

 

সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি
আগামী ২৬ জুন মঙ্গলবার গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার চন্ডিপুর ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে হবে। শেষ হয়েছে প্রচার-প্রচারণা। নির্বাচনে ১৩টি পদের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে ৫৩ জন প্রার্থী। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ৫ জন, সংরক্ষিত আসনে ৮ জন এবং সাধারন আসনে ৪০ জন । চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ মনোনিত প্রার্থী আব্দুছ সোবহান সরকার (নৌকা), বিএনপি মনোনিত আব্দুল মালেক মিয়া (ধানের শীর্ষ), জাতীয় পার্টি মনোনিত ফুল মিয়া (লাঙ্গল), স্বতন্ত্র প্রার্থী মাইদুল ইসলাম (আনারস) এবং রাজা প্রামানিক ( মোটর সাইকেল)। বিভিন্ন এলাকা ঘুরে ফিরে সাধারন ভোটারদের সাথে কথা বলে জানা গেছে নির্বাচনে লড়াই হবে ত্রি-মুখী। তবে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী থাকায় মুলত লড়াই হবে দ্বি-মুখী। ভোটারদের দাবি লাঙ্গল ও ধানের শীর্ষের মধ্যে হাড্ডা-হাড্ডি লড়াই হবে। অনেক ভোটারের দাবি যেহেতু সুন্দরগঞ্জে এখন জাতীয় পাটির এমপি রয়েছে সেহেতু জাতীয় পার্টির প্রার্থীকে চেয়ারম্যান নির্বাচিত করতে হবে। আ’লীগ প্রার্থী আব্দুছ সোবহান সরকার বলেন জয়ের ব্যাপারে তিনি আশাবাদী। অপরদিকে বিদ্রোহী মাইদুল ইসলাম জানান তিনি নির্বাচনে অবশ্যাই জিতবেন। বিএনপি প্রার্থী আব্দুল মালেক মিয়া জানান সুষ্ঠু নির্বাচন হলে তিনি নির্বাচিত হবেন। জাতীয় পার্টির প্রার্থী ফুল মিয়া বলেন অবাধ নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে তিনি শতভাগ আশাবাদী চেয়ারম্যান নির্বাচিত হবেন। রিটানিং অফিসার ও উপজেলা পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা ফজলে রাব্বী মো:সাজ্জাদুর রহমান জানান-ইতিমধ্যে নির্বাচনের যাবতীয় প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা সেকেন্দার আলী জানান- নির্বাচন অবাধ ও নিরপেক্ষ হবে। অন্যান্য নির্বাচনের চেয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সংখ্যা অনেক বেশি থাকবে। চন্ডিপুর ইউনিয়নে মোট ভোট সংখ্যা ২২ হাজার ৩৬৭ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১০ হাজার ৯৪৭ জন এবং নারী ভোটার ১১ হাজার ৪২০জন। ভোট কেন্দ্রের সংখ্যা ৯টি এবং বুথ সংখ্যা ৬৪টি। ২০১৬ সালের ৩১ মার্চ ভোট গ্রহনের কথাছিল। সীমানা সংক্রান্ত জটিলতার কারনে হাই কোর্টে রিট পিটিশন করায় নির্বাচন স্থগিত হয়।

০ Comments

Leave a Comment

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password