এড. খন্দকার দেলোয়ার হোসেনের ৬ষ্ঠ শাহাদাত বার্ষিকীতে  চট্টগ্রামে বিএনপির উদ্যোগে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল

  প্রিন্ট
(Last Updated On: মার্চ ১৬, ২০১৭)

 

আজ বাদে জোহর নাসিমন ভবনস্থ দলীয় কার্যালয় জামে মসজিদে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের উদ্যোগে বিএনপির সাবেক মহাসচিব এড. খন্দকার দেলোয়ার হোসেনের ৬ষ্ঠ শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
দোয়া ও মিলাদ মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র সভাপতি ডা: শাহাদাত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর, সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ান, এম.এ. আজিজ, মোহাম্মদ আলী, কাজী বেলাল উদ্দিন, হারুন জামান, এসকান্দার মির্জা, আর.ইউ. চৌধুরী শাহীন, মোশারফ হোসেন দীপ্তি, ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, সবুক্তগীন ছিদ্দিকী মুক্কি, সামশুল আলম, আনোয়ার হোসেন লিপু, সোহরাব কোম্পানী, মামুনুল ইসলাম হুমায়ুন, কামরুল ইসলাম, গাজী মোঃ সিরাজ উল্লাহ, এইচ এম রাশেদ খান, মঞ্জুর রহমান চৌধুরী, মঞ্জুর আলম মঞ্জু, হাজী বেলাল হোসেন, হাজী হানিফ সওদাগর, জাহিদুল হাসান, মোঃ সালাহ উদ্দিন, এস.এম. জামাল উদ্দিন জসিম, আলাউদ্দিন আলী নুর, মঞ্জুর আলম মঞ্জু, শওকত আজম খাজা, আতাউল্লাহ বাবু, আফতাবুর রহমান শাহীন, ইসহাক চৌধুরী আলীম, সাইফুর রহমান বাবুল, এম.আই. চৌধুরী মামুন, মোঃ বেলাল, আব্বাস রশিদ, তৌহিদুস সালাম নিশাদ, সাইফুর রহমান শপথ, আব্দুল্লাহ আল হারুন, এম.এম হালিম বাবলু, কাজী সামশুল হক, মোঃ এমরান, সালাহ উদ্দিন লাতু, মোঃ ইলিয়াছ চৌধুরী, এস.এম. মফিজুল্লাহ, জিয়াউদ্দিন খালেদ চৌধুরী, জাহেদ উল্লাহ রাশেদ, নুর মোহাম্মদ, মুহাম্মদ ফয়েজ, জসিম উদ্দিন চৌধুরী, মনিরুজ্জামান টিটু, এস.এম. রব, জিয়াউর রহমান জিয়া, মোশারফ হোসেন, জমির উদ্দিন নাহিদ, ইকবাল হোসেন সংগ্রাম, খোরশেদ আলম কুতুবী, ছাদেকুর রহমান রিপন, মুহাম্মদ আব্দুর রহিম, আজাদ বাঙালি, মঞ্জুর কাদের, রফিকুল ইসলাম, আব্দুল হাই, এরশাদ হোসেন প্রমুখ।
উক্ত দোয়া ও মিলাদ মাহফিলে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন তার বক্তব্যে বলেন, মরহুম খন্দকার দেলোয়ার হোসেন ছিলেন একজন খাঁটি দেশ প্রেমিক, তাঁর জীবনের শেষ সময়টুকু তিনি দেশ ও দলের জন্য ত্যাগ করে গিয়েছেন। বাংলাদেশের প্রতিটি গণতান্ত্রিক আন্দোলনে তাঁর ভূমিকা ছিল অপরিসীম। এই মহান ব্যক্তির অভাব আজ বাংলাদেশ তথা বিএনপি বড় অনুভব করছে। দেশের এই ক্রান্তিকালে খন্দকার দেলোয়ার হোসেনের মত সাহসী ব্যক্তির বড় প্রয়োজন। ১/১১’র দুসময়ে বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে যখন মঈনুদ্দীন ফখরুদ্দীন গংরা গলাটিফে হত্যা করে দুই নেত্রীকে মাইনেজ করে ক্ষমতা দখলের যে চেষ্ঠা করেছিল সেদিন খন্দকার দেলোয়ার নিজের জীবন বাজী রেখে মঈনুদ্দীন ফখরুদ্দীনের রক্ত চক্ষুকে উপেক্ষা করে তাদের এদেশের মানুষকে সংঘটিত করে গণতন্ত্রকে পুনরুদ্ধার করেছিলেন। সেদিন যদি মঈনুদ্দীন ফখরুদ্দীনরা সফল হত তাহলে বাংলাদেশের ইতিহাস আজ ভিন্নভাবে লেখা হত। ডা. শাহাদাত হোসেন তাই তাঁর বক্তব্যে খন্দকার দেলোয়ার হোসেনের রুহের মাগফেরাত কামনা ও তাঁর আদর্শে উজ্জ্বীবিত হয়ে সকলকে আগামীদের আন্দোলনের জন্য সকল ভেদাভেদ ভূলে গিয়ে আরও ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান।
সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর তাঁর বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশ আজ গণতন্ত্রহীন, এই গণতন্ত্রকে রক্ষার জন্য খন্দাকার দেলোয়ার হোসেনের আদর্শে সবাইকে উজ্জ্বীতি হতে হবে। তাঁর জীবনী থেকে সবাইকে শিক্ষা নিতে হবে। তিনি এ দেশ ও দলের জন্য যে ত্যাগ স্বীকার করে গিয়েছেন তা আমাদের কাছে অনুপ্রেরণা। শেখ হাসিনার হিংস্র থাবায় আজ বাংলাদেশের গণতন্ত্র ক্ষত-বিক্ষত। এ গণতন্ত্র তথা বাংলাদেশের ভোটের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য আগামী দিনে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান।
উক্ত দোয়া মাহফিলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাহ উদ্দিন আহমেদ দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সম্মানিত উপদেষ্টা সাবেক এমপি বেগম রোজি কবির ও শ্রমিক দল কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি আনোয়ার হোসেনের রোগ মুক্তি কামনা ও দেশ ও জাতির সমৃদ্ধি কামনায় দোয়া করা হয়। উক্ত দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন নাসিমন ভবন দলীয় কার্যালয় মসজিদের পেশ ইমাম মাওলানা এহসানুল হক।

০ Comments

Leave a Comment

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password