নির্যাতনে গৃহ বধু ঘর ছাড়া, স্বামী বিয়ে করলো এক নাবালিকাকে

  প্রিন্ট
(Last Updated On: মার্চ ৪, ২০১৭)

 

হিমেল তালুকদার, ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার গড়েয়াতে যৌতুকের দাবিতে স্বামীর নির্যাতন সইতে না পেরে বাবার বাড়ীতে আশ্রয় নেওয়ায় নতুন করে এক নাবালিকা মেয়েকে বিয়ে করে ঘরে এনেছে স্বামী দীপ শংকর। বিষয়টি এলাকায় বেশ চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছে।

জানা যায়, গড়েয়া ঢাঙ্গীপুকুর গ্রামে বসন্ত বাবুর(বুধারু মাহান) এর ছেলে দীপ শংকর প্রায় পাঁচ বছর পূর্বে দেবীগঞ্জ এলাকার প্রেম কুমারের মেয়ে শেফালী রানীকে বিয়ে করে। দুই বছর পর তাদের সংসারে একটি কন্যা সন্তান মুক্তা রানীর জন্ম হয়। তার বয়স প্রায় তিন বছর। দীপ শংকর ও শেফালী রানী পারিবারিক কলহ ও যৌতুকের কারণে প্রায়ই তার স্বামী সহ বাসার সকলে তার উপর নির্যাতন করতো। নির্যাতনের কারণে সে এক পর্যায়ে তার মেয়ে মুক্তাকে নিয়ে বাপের বাড়ি চলে যায় এবং ঠাকুরগাও কোর্টে একটি নারী নির্যাতন মামলা করে। মামলাটি বর্তমানে চলমান।

এদিকে গত পহেলা মার্চ বৃহস্পতিবার দীপ শংকর তার বড় বউয়ের অনুমতি ছাড়াই আর একটি নাবালিকা মেয়েকে বিয়ে করে ঘরে আনে। দীপ শংকর সেই মেয়ে ও তার পরিবারের কাছে তার পূর্বের বিয়ের কথা গোপন করে। এতে তার বোন জামাই সহযোগীতা করে বলে জানা যায়।

বিয়ের কথা শুনে শেফালী তার বাপের বাড়ি থেকে স্বামীর বাড়িতে ছুটে আসলে দীপ শংকর ও তার পরিবারের সকলে শেফালী ও তার মেয়ে মুক্তাকে মারধর করে এবং মাথার চুল ধরে টেনে হিচড়ে বাড়ি থেকে বের করে দেয়, কিন্তু শেফালী কোন ক্রমেই তার স্বামীর বাড়ি ও স্বামীর অধিকার ছাড়তে নারাজ। সে গত বৃহস্পতি বার রাত থেকে এ পর্যন্ত তার মেয়েকে নিয়ে তার স্বামীর বাড়ির বাইরে ফাঁকা গাছের নিচে অবস্থান করছে।

সমাজের কিছু খারাপ লোক টাকার বিনিময়ে শেফালী কে সরিয়ে দেওয়ার অপচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বলে জানা গেছেষ

০ Comments

Leave a Comment

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password