ডায়াবেটিকস নিউরোপ্যাথি বা স্নায়ুর অসাড়তা

  প্রিন্ট
(Last Updated On: অক্টোবর ৩০, ২০১৭)
ডায়াবেটিস বর্তমানে মহামারী আকার ধারণ করেছে। ডায়াবেটিস আক্রান্ত ব্যক্তিদের হাত ও পায়ের শেষ ভাগের স্নায়ুগুলোর আস্তে আস্তে কার্যক্ষমতা কমে আসে বিশেষ করে যারা দীর্ঘদিন অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিসে ভুগে থাকে। যার ফলে আক্রান্ত ব্যক্তির হাত ও পায়ের শেষ ভাগে অনুভূতি কমে যেতে থাকে। যা রোগীর জন্য ‘মারাত্মক ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। অনেকের পায়ের অনুভূতি এত কমে যায় যে, তার পা কেটে রক্ত বের হচ্ছে কিন্তু তিনি বলতে পারেন না।
লক্ষণগুলো :
১. হাত-পা ঝিনঝিন করা।
২. হাত-পায়ের শক্তি কমে যাওয়া ।
৩. হাত ও পায়ের মাংসপেশি শুকিয়ে যাওয়া।
৪. হাত ও পায়ের তালুতে জ্বালাপোড়া অনুভব করা।
চিকিৎসার প্রথমে প্রয়োজন ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখা, দ্বিতীয়ত ফিজিওথেরাপি চিকিৎসার মাধ্যমে হাত ও পায়ের মাংসপেশির কার্যক্ষমতা ঠিক রাখা ও নিয়মিত ব্যায়াম করা।
ডায়াবেটিস রোগীর ব্যায়ামে কী উপকার হয়, আসুন জেনে নেই
১. ব্যায়ামে শক্তি খরচ হয়, ফলে শরীরের ওজন কম থাকে ও
শরীরে চর্বি কমে।
২. ব্যায়ামের মাধ্যমে ইনসুলিন তৈরি হয়।
৩. ব্যায়াম ইনসুলিনের কর্মক্ষমতা বাড়ায়, ফলে শরীরে অল্প যা ইনসুলিন তৈরি হয় তাতেই রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা নিয়ন্ত্রিত থাকে, বাড়তি ওষুধের দরকার না-ও পড়তে পার।
৪. ব্যায়ামের ফলে শরীরের রক্ত সঞ্চালন বাড়ে।
৫. ডায়াবেটিসের জটলিতা কমানো সম্ভব হয়।
৬. ব্যায়াম রক্তে ভালো কোলেস্টেরল বাড়ায় এবং খারাপ কোলেস্টেরল কমায়
৭. ব্যায়াম উচ্চ রক্তচাপ কমায়।
৮. ব্যায়াম দুশ্চিন্তা দূর করে মনকে সতেজ-প্রফুল্ল রাখে, ঘুম ভালো হয়।
৯. হাড় ও হৃৎপিণ্ডকে শক্তিশালী করে।
১০. জয়েন্টগুলো সচল রাখে।
১১. ব্যায়াম রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।
১২. ব্যায়াম বয়স বৃদ্ধিতে ও কমাতে বেশ উপকারী।
১৩. ব্যায়াম ডায়াবেটিস রোগ প্রতিরোধে উপকারী।
ডা. এম ইয়াছিন আলী
চেয়ারম্যান ও চিফ কনসালটেন্ট
ঢাকা সিটি ফিজিওথেরাপি হাসপাতাল।

০ Comments

Leave a Comment

Login

Welcome! Login in to your account

Remember me Lost your password?

Lost Password