বাংলাদেশ, মঙ্গলবার, ২৩শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং, ১০ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ।

ইমাম হোসাইন (রা.) ইনসাফ, শান্তি ও ন্যায়ের পতাকা উড্ডয়ন রেখেছেন

 

২৯ সেপ্টেম্বর শুক্রবার সন্ধ্যায় নগরীর বহদ্দারহাট কাঁচা বাজার জামে মসজিদে তিনদিনব্যাপী আহলে বায়তে রাসুল (স.) স্মরণে শোহাদায়ে কারবালা মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও রূপালী ব্যাংক লিমিটেডের পরিচালক সাংবাদিক আবু সুফিয়ান বলেছেন, বিশ্ব ইতিহাসে কারবালা একটি লোমহর্ষক হৃদয়বিদারক ঘটনা। কারবালার প্রান্তে ফোরাত নদীর তীরে যেদিন নিজের প্রাণ বিসর্জন দিয়েছিলেন ইমাম হোসাইন (রা.)। সেদিন থেকে ইসলামী আদর্শ প্রকৃত প্রাণশক্তি অর্জন করেছে। কারবালা হল ত্যাগের, শক্তির প্রতিবাদের সফলতা ও বিজয়ের। কারবালা স্মৃতি মুসলিম হৃদয়ে কেবল শোকের আবহ জাগায় না, বরং সাধনা ও সাফল্যের এক নতুন উদ্দীপনা জাগিয়ে তোলে। কারবালার শিক্ষা হলো সর্বোচ্চ ত্যাগ ও আত্মোৎসর্গের জন্য প্রস্তুত থাকা। যেদিন হযরত ঈমাম হোসাইন (রা.) নিজের প্রাণ বিসর্জন দিয়ে ইনসাফ, শান্তি ও ন্যায়ের পতাকা উড্ডয়ন রেখেছেন। মানুষ যে শিক্ষায় শিক্ষিত হোক না কেন, আহলে বায়তের স্মরণ করতেই হবে। কিন্তু বর্তমান বিশ্বে বিরাজ করছে ধর্মের নামে অধর্ম। লোক দেখানো অনুষ্ঠানাদি পরিচালনা করে প্রকৃত আহলে বায়তের অনুসরণ থেকে দূরে সরে গিয়েছে। আহলে বায়ত (স.) এর হক্কানী আলেমদের নিবিড় প্রচেষ্টায় আমরা প্রকৃত ইসলাম পেয়েছি। তাই তাদের স্মরণ আমাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য। ঐতিহ্যবাহী বহদ্দারহাট জামে মসজিদের খতিব ও ছোবহানিয়া আলীয়া কামিল (এম.এ) মাদরাসার প্রধান মুহাদ্দিস, প্রখ্যাত ইসলামী চিন্তাবিদ আল্লামা মুহাম্মদ নিজাম উদ্দিন রশিদীর সভাপতিত্বে এই মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও রূপালী ব্যাংক লিমিটেডের পরিচালক সাংবাদিক আবু সুফিয়ান। আলোচনা করেন বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ মাওলানা মুহাম্মদ ইউসুফ বাহার। সম্মানিত বিশেষ অতিথি হিসেবে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন বিশিষ্ট ইসলামী চিন্তাবিদ ও ইতিহাস গবেষক অধ্যক্ষ মুহাম্মদ ইউনুচ কুতুবী, মিনহাজুল কোরআন ইন্টারন্যাশনাল এর চট্টগ্রাম বিভাগীয় অর্থ সচিব, বিশিষ্ট লেখক মুহাম্মদ আবদুর রহিম, মাওলানা জয়নুল আবেদীন, হাজী সরওয়ার্দী, রুহুল আমিন, হাজী মুহম্মদ মুছা, মুহাম্মদ জামাল উদ্দিন, স ম জিয়াউর রহমান, আসিফ ইকবাল, মুহম্মদ ইমরান হোসেন প্রমুখ। মাহফিলের শুরুতে পবিত্র কোরআন ও নাতে রাসুল (স.) পরিবেশিত হয়। মাহফিল শেষে বিশেষ মিলাদ ও দোয়া পরিচালনা করেন প্রখ্যাত ইসলামী চিন্তাবিদ আল্লামা মুহাম্মদ নিজাম উদ্দিন রশিদী।

 

আরো খবর

Leave a Reply